নয়াদিল্লি: অত্যন্ত জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্স। রীতিমতো টাকা খরচ করে পছন্দের সিনেমা এখানে দেখা যায়। অন্যতম বৃহৎ স্ট্রিমিং সার্ভিস এটি। এই পরিষেবা এবার বিনামূল্যে পাওয়ার সুযোগ থাকছে দর্শকদের সামনে। পাঁচই ডিসেম্বর ও ছয় ডিসেম্বর দর্শকদের জন্য বিনামূল্যে সিনেমা দেখার সুযোগ করে দিয়েছে নেটফ্লিক্স।

উল্লেখ্য নেটফ্লিক্স দেখার জন্য সাবস্ক্রিপশন দিতে হয়। যদিও সাবস্ক্রিপশন নিলে এক মাসের ফ্রি ট্রায়াল মেলে নেটফ্লিক্সে। তবে তার জন্য পেমেন্টের তথ্য দিতে হয় নেটফ্লিক্সকে। অর্থাৎ এক মাসের ফ্রি ট্রায়াল শেষ হলে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেবে নেটফ্লিক্স। কিন্তু ৫ ও ৬ই ডিসেম্বর যে পরিষেবা দিচ্ছে নেটফ্লিক্স, তাতে পেমেন্টের কোনও তথ্য অর্থাৎ ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের কোনও তথ্য দিতে হবে না।

এখানে এবার নেটফ্লিক্স নিয়ে এসেছে স্ট্রিমফেস্ট পরিষেবা। যার মাধ্যমে বিনামূল্যে দুদিন সিনেমা দেখা যাবে। একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, যারা নেটফ্লিক্সের গ্রাহক নয়, একমাত্র তাঁদের জন্যই এই পরিষেবা দেওয়া হবে। যারা নেটফ্লিক্সের সদস্য নয়, তাঁরা এই পরিষেবার সুযোগ নিতে পারবে। নেটফ্লিক্সের প্ল্যান শুরু হয় প্রতি মাসে ১৯৯ টাকা থেকে। এই ১৯৯ টাকার প্ল্যান শুধু মোবাইলের জন্য। নেটফ্লিক্সের সর্বোচ্চ প্ল্যান ৭৯৯ টাকা, প্রতি মাসে।

উল্লেখ্য অক্টোবরেই নেটফ্লিক্স স্ট্রিমফেস্টের ঘোষণা করেছিল। এই স্ট্রিমফেস্টে গ্রাহকরা যে কোনও সিনেমা বিনামূল্যে দেখতে পারবেন। ৫ই ডিসেম্বর রাত ১২.০১ মিনিট থেকে শুরু হবে পরিষেবা। চলবে ৬ই ডিসেম্বর রাত ১১.৫৯ মিনিট পর্যন্ত। এজন্য দর্শকদের নিজেদের নাম, মেল আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করতে হবে।

অ্যান্ড্রয়েডে অ্যাপ ডাউনলোড করে সাইন ইন করতে হবে। ভোডাফোন পোস্টপেড ব্যবহারকারীরা এক বছরের জন্য নেটফ্লিক্স ব্যবহার করতে পারবেন। তবে তার জন্য এক মাসে ১০৯৯ টাকার প্ল্যান নিতে হবে। বছরে ৫৯৮৮ টাকার প্ল্যানে বিনামূল্যে পাওয়া যাবে নেটফ্লিক্স।

গ্রাহকরা এই পরিষেবা পাওয়ার জন্য মোবাইল ফোন, ট্যাবলেট, ল্যাপটপ থেকে লগ ইন করতে পারেন। তবে দর্শকের সংখ্যা নির্দিষ্ট রাখবে নেটফ্লিক্স। কারণ দর্শক বেশি হলে স্ট্রিমিং ব্যাহত হতে পারে বলে জানানো হয়েছে নেটফ্লিক্সের তরফে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।