ইসলামাবাদঃ  কাশ্মীর ইস্যুতে নতুন করে উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করেছে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে। এরই মধ্যে রাতের অন্ধকারে মিসাইলের পরীক্ষা করল ইসলামাবাদ। মিসাইল বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, সম্ভবত গাজনভি মিসাইলের পরীক্ষা করেছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। যার রেঞ্জ ৩০০ কিলোমিটার। বালোচিস্তানের সোনমিয়ানি ফ্লাইট টেস্ট রেঞ্জের ৫৯ কমান্ড পোস্ট থেকে নিক্ষেপ করা হয় মিসাইলটি।

এই মিসাইল পরীক্ষার জন্যই করাচি যাওয়ার তিনটি এয়ারস্পেস বন্ধ করা হয়েছে ২৮ থেকে ৩১ অগাস্ট। যেখানে এই টেস্ট হয় তার আশেপাশে জলপথেও জারি হয়েছে অ্যালার্ট। জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। গাজনভি হল পাকিস্তানের একটি শর্ট রেঞ্জ মিসাইল। পাকিস্তানের হাতে শাহিন ও গৌরি নামেও আরও দুটি এই ধরনের রেঞ্জের মিসাইল আছে। রইল সেই মিসাইল পরীক্ষার ভিডিও। যেখানে দেখা যাচ্ছে রাতের অন্ধকারে পাক সেনা একটি মিসাইল ছুঁড়ছে। আর তা সফল হওয়ার পর পাক সেনারা নিজেদের মধ্যে আনন্দ ভাগ করে নিচ্ছেন।

উল্লেখ্য, বুধবার পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রসিদ আহমেদ বলেন পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে অক্টোবর বা নভেম্বর নাগাদ ভীষণ রকম যুদ্ধ শুরু হতে পারে। কাশ্মীর সমস্যার যদি সমাধান না হয় তাহলে বিষয়টা পারমানবিক যুদ্ধ অবধি যেতে পারেন এবং সেক্ষেত্রে ভারতকে বিপদের সম্মুখীন হতে হবে বলেও জানিয়েছেন ইমরানও।

স্বাধীনতার পর থেকে এখনও অবধি ১৯৬৫ ও ১৯৭১ যুদ্ধক্ষেত্রে মাঠে নামে এছাড়া ১৯৯৯ সালের কারগিল যুদ্ধ সব মিলিয়ে মোট ৩ বার পাকিস্তান ভারত যুদ্ধের ময়দানে মুখোমুখি হলেও পাকিস্তান কিন্তু এখনও জিততে পারে নি। তবে এবারে যদি যুদ্ধ হয় সেক্ষেত্রে ফলাফল অন্যরকম হবে বলেও হুঁশিয়ারী দিয়েছেন রসিদ। যদিও ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকে পাকিস্তান শুরু থেকেই ভারতের বিরোধিতা করে আসছে এমনকি তারা বেআইনি বলেও এই কাজকে দাবি করেছে। যদিও দিল্লির তরফ থেকে জানানো হয়েছে এটা একেবারেই ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয়।