রাঁচি: অভিনেত্রী আমিশা পাটেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি। এই পরোয়ানা জারি করেছে রাঁচির একটি আদালত। আর্থিক প্রতারণা ও চেক বাউন্সের ঘটনায় বলিউড এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। ফলে আদালতের এহেন নির্দেশে কার্যত অভিনেত্রীর জেল হওয়া একপ্রকার নিশ্চিত বলেই মনে করছে ওয়াকিবহালমহল।

অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে অজয় কুমার সিং নামে এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন। প্রতারণা সহ একাধিক বিষয়ে মামলা দায়ের হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে দীর্ঘদিন ধরে মামলা চলছিল। সেই ঘটনাতেই নায়িকার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। রাঁচি পুলিশ খুব শিগগির মুম্বই যাবে বলে খবর।

সর্বভারতীয় জাতীয় এক সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে অজয় সিং জানিয়েছেন, অভিনেত্রী ও তাঁর ব্যবসায়ী পার্টনার কুনাল একটি ছবি তৈরির জন্য আড়াই কোটি টাকা নিয়েছিলেন। তাঁরা কথা দিয়েছিলেন ২০১৮-তে ছবি মুক্তির পর সেই টাকা ফেরত দিয়ে দেবেন। কিন্তু ২০১৮-তে কোনও ছবিই মুক্তি পায়নি। আমরা যখন আমিশার কাছে টাকা দাবি করি, তখন তিনি একটি চেক দিয়েছিলেন ৩ কোটি টাকার। কিন্তু সেই চেক ব্যাংকে জমা দেওয়ার পর দেখা যায় সেটি বাউন্স হয়ে গিয়েছে। এত বড় মূল্যের চেক বাউন্স হওয়াতে তাঁকে অপদস্ত কম হতে হয়নি বলে দাবি করেছেন অজয় কুমার সিং।

অজয়বাবুর দাবি, এরপরে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করা হয় আমিশার সঙ্গে। শুধু তাই নয়, ব্যবসায়িক পার্টনার কুনালের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তাঁদের কাউকেই ফোনে পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ অজয় কুমারের। গত বছর এই সংক্রান্ত অভিযোগ জানানো হয়। রাঁচির আদালতে একটি প্রতারণার মামলা দায়ের হয়। গত এক বছর ধরে মামলা চলে। সেই সংক্রান্ত মামলাতেই আদালত আমিশার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে বলে জানিয়েছেন অজয়বাবু।

শুধু এই ঘটনা নয়, একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে রাঁচির এক সংস্থার কাছ থেকে বহু টাকা নেন আমিশা। কিন্তু শেষমেশ সেই অনুষ্ঠানে যাননি তিনি। যা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। সেই রেশ কাটতে না কাটতে ফের বিতর্কে মুম্বয়ের এই নায়িকা।