নিউজ ডেস্ক: দুঃসংবাদ! Zomato, Swiggy-তে বেড়ে যাচ্ছে খাবার অর্ডার করার খরচ। ৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বাড়তে পারে অর্ডার পিছু দাম।

শুধুমাত্র একটা ক্লিক। অফিস কিংবা বাড়ি, পার্টি হোক কিংবা গেট টুগেদার! যে কোন সময় যে কোনও জায়গায় পৌঁছে যেত পছন্দের খাবারটা। সময় যাদের হাতে নিতান্তই কম, তাদের জন্য Zomato, Swiggy-র মত অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপগুলি আশীর্বাদ স্বরূপ। কিন্তু এবার সেই সব গ্রাহকদের কপালে চিন্তার ভাঁজ। কারণ ঘরে বসে খাবার পেতে খাবারের দামের থেকে বেশ কিছুটা বেশি অর্থই ব্যয় করতে হত গ্রাহকদের। আবার দাম বাড়ায় চিন্তা বাড়ছে গ্রাহক মহলে।

সূত্রের খবর, রেস্তোরাঁর আসল দামের থেকে বেশকিছু টাকা বেশি নেয় এই অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপগুলি। ১৫-৩৫ শতাংশ পর্যন্ত ওঠানামা করে সেই টাকার পরিমাণ। রেস্তোরাঁর তরফ থেকে Zomato, Swiggy-কে কমিশন দেওয়া হয়। যার কারণেই এই সুবিধা পেয়ে থাকেন গ্রাহকরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সারা ভারত জুড়ে ১৩০ টি শহরে খাবার পৌঁছে দেয় Zomato। সেই জায়গায় Swiggy ২২ টি শহরে খাবার সরবরাহ করে থাকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।