দুবাই: আইপিএলের ইতিহাসে অন্যতম ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান তিনি। বিদেশি হিসেবে সর্বোচ্চ এবং সামগ্রিকভাবে চতুর্থ সর্বোচ্চ রানের মালিক ডেভিড ওয়ার্নার বৃহস্পতিবার একটি অনন্য কীর্তি গড়লেন আইপিএলে। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আইপিএলে ৫০টি অর্ধশতরান করলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অধিনায়ক।

দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে এদিন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ৪০ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলেন ওয়ার্নার। কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে এই নিয়ে টানা ৯টি ম্যাচে অর্ধশতরান করলেন ওয়ার্নার, যেটিও একটি দুর্দান্ত রেকর্ড। কোনও প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে টানা ৯টি ম্যাচে অর্ধশতরানের নজির আইপিএলে কোনও ক্রিকেটারের নেই। তবে আইপিএলে তিনবারের কমলা টুপির মালিকের অর্ধশতরানের অর্ধশতক নিয়েই চর্চা চলল সারাক্ষণ।

আইপিএলে ১৩২ ইনিংসে এই নজির নিজের নামে করে নিলেন অজি ওপেনার। যা নিঃসন্দেহে ব্যাট হাতে তাঁর ধারাবাহিকতার সাক্ষ্য প্রমাণ করে। আইপিএলে সর্বাধিক অর্ধশতরানের নিরিখে ওয়ার্নারের পরেই রয়েছেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ১৭৪ ইনিংসে খেলে কোহলি হাফসেঞ্চুরির হাফসেঞ্চুরি থেকে এখনও আট ধাপ দূরে। ১৮৯ ইনিংস খেলে তৃতীয় এবং চতুর্থস্থানে যথাক্রমে সুরেশ রায়না এবং রোহিত শর্মা। দুই ব্যাটসম্যানের নামের পাশেই রয়েছে ৩৯টি করে অর্ধশতরান।

১৪৭ ইনিংস খেলে ৩৮টি অর্ধশতরান নিয়ে আপাতত পঞ্চমস্থানে এবি ডি’ভিলিয়ার্স। বৃহস্পতিবার জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে জুটি বেঁধে ওপেনিং পার্টনারশিপে ১৬০ রান তোলেন সানরাইজার্স অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। ওয়ার্নারের থেকেও এদিন অনেক বেশি বিধ্বংসী ফর্মে ছিলেন বেয়ারস্টো। ৫৫ বলে ৯৭ রানের ইনিংস খেলেন ইংরেজ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। এছাড়া ওয়ার্নারের ৫২ এছাড়া শেষদিকে কেন উইলিয়ামসনের ১০ বলে ২২ রানের ঝোড়ো ইনিংস হায়দরাবাদকে ২০ ওভারে ২০১ রান তুলতে সহায়তা করে।

লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৩২ রানে গুটিয়ে যায় পঞ্জাব। ৬৯ রানে ম্যাচ জিতে লিগ টেবিলে তৃতীয়স্থানে উঠে আসে হায়দরাবাদ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।