তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ‘লড়াইটা হোক ভাতের জন্য, জাতের জন্য নয়’ স্লোগানকে সামনে রেখে বাম গণ সংগঠন গুলির ডাকে চিত্তরঞ্জন থেকে কলকাতা ‘লং মার্চে’র সমর্থণে বাঁকুড়ায় পথ হাঁটলেন সিপিএম নেতা কর্মীরা।

সোমবার কাঁকিল্যা থেকে বিষ্ণুপুর পর্যন্ত পদযাত্রায় অসংখ্য সিপিএম নেতা কর্মী অংশ নিলেন। উপস্থিত ছিলেন সিপিএম নেতা আভাষ রায়চৌধুরী, স্বপন ঘোষ, সিআইটিইউ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কিংকর পোষাক, ডিওয়াইএফআই বাঁকুড়া জেলা সভাপতি ধনঞ্জয় বেজ প্রমুখ।

এদিন এই মিছিল থেকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন দলীয় কর্মী সমর্থকরা। পরে বিষ্ণুপুরে এক সভায় বক্তব্য রাখেন সিপিএম নেতৃত্ব। দীর্ঘ দিনের লাল দূর্গ হিসেবে পরিচিত বিষ্ণুপুর মহকুমা এলাকা। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিষ্ণুপুর কেন্দ্রটি বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থী জয়ী হলেও ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে এখানে জয়ী হয় বিজেপি।

লোকসভা ভোটের পর এই প্রথম লাল ঝাণ্ডার দীর্ঘ মিছিল দেখলো বিষ্ণুপুর। অসংখ্য মানুষ এদিন স্বতঃস্ফূর্তভাবে তাদের মিছিলে যোগ দিয়েছেন বলে সিপিএম নেতৃত্ব জানিয়েছেন।

সিপিএম নেতা আভাষ রায়চৌধুরী বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ব ক্ষেত্রকে রক্ষা করা, বেকার যুবক ও ক্ষেত মজুরদের কাজ, কৃষকের ফসলের দামের দাবীর পাশাপাশি এনআরসি-নিয়ে মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরীর বিরুদ্ধে লং মার্চ শুরু হয়েছে। যা ইতিমধ্যে চিত্তরঞ্জন থেকে শুরু হয়ে কলকাতার অভিমুখে যাত্রা শুরু করেছে।

এই লং মার্চের সমর্থণে সারা রাজ্যেই এই ধরণের পদযাত্রা হচ্ছে। আগামী ১১ ডিসেম্বর কলকাতার মহা সমাবেশে লক্ষ লক্ষ কৃষক, শ্রমিক, মহিলা, বেকার যুবকরা মিলিত হবেন বলেও তিনি জানান।