স্টাফ রিপোর্টার, আলিপুরদুয়ার: ভোটের আসন একটি৷ কিন্তু লড়াইয়ে দুজন৷ সব জায়গাতে একটি আসন ও একজন প্রার্থী থাকে৷ কিন্তু এর উলটোটাই হচ্ছে আলিপুরদুয়ার জেলার ভুটানের তাদিং পাহাড়ের কোলে অবস্থিত টোটোপাড়ায়৷

কারণ, একটাই এই গ্রামে ভোটারের সংখ্যা অন্যান্য গ্রামের তুলনায় প্রায় চার গুণ বেশি৷ তাই এই ব্যবস্থা৷ জেলা শাসক দেবীপ্রসাদ করণমের দাবি, সম্ভবত রাজ্যের মধ্যে এই প্রথম ‘ডাবল মেম্বার কনস্টিটিউয়েনসি’ এই জেলায়৷

ওই গ্রামপঞ্চায়েত আসনে জোড়া প্রার্থী দিচ্ছে সব রাজনৈতিক দল৷ গ্রাম পঞ্চায়েতে ভোটাররাও ভোট দিচ্ছেন এক জোড়া করে৷ অর্থাৎ রাজ্যের অন্যান্য জায়গায় ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে যেখানে ভোটাররা তিনটি করে ভোট দেবেন৷ এই গ্রাম পঞ্চায়েতে ভোটাররা মোট চারটি ভোট দেবেন। শুনলে অবাস্তব মনে হলেও এই রকমই ঘটতে চলেছে আলিপুরদুয়ার জেলার ভুটানের তাদিং পাহাড়ের কোলে অবস্থিত টোটোপাড়ায়।

বীরপাড়া মাদারিহাট ব্লকের ৪০ নম্বর পার্টে টোটোপাড়া-বল্লালগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে একটি কেন্দ্র থেকে জিতবেন দুজন পঞ্চায়েত সদস্য। এই পার্টের মোট ১৩১২ জন ভোটার দুই প্রার্থীর জন্য ভোট দেবেন দুটো করে। দুটো আলাদা আলাদা ব্যালট পেপারে দুই পঞ্চায়েতের জন্য ভোট দেবেন।

কিন্তু কেন এমনটা হল? আলিপুরদুয়ারের জেলা নির্বাচনী আধিকারিক দেবীপ্রসাদ করণম জানিয়েছেন, বীরপাড়া মাদারিহাট ব্লকের টোটোপাড়া-বল্লালগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে মোট ভোটার ৩৮০৮ জন। একটি গ্রাম পঞ্চায়েত সংসদের জন্য কমপক্ষে ৯০০ জন ভোটার দরকার হয়। ভোটারের সংখ্যার নিরিখে টোটোপাড়া বল্লালগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের পাঁচটি সংসদ করার ক্ষমতা নেই। কিন্তু যে কোনও গ্রাম পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের জন্য আবার পাঁচ জন পঞ্চায়েত সদস্য জরুরি। সেই কারণে এখানে একটি সংসদ আসন থেকে দুই জন পঞ্চায়েত সদস্যকে নির্বাচনে জয়ী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ব্লকের ৪০ নম্বর পার্টের আসনটিতে সব থেকে বেশি ভোটার। এই কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৩১২ জন। পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ৬৭৭ জন। আর মহিলা ভোটারের সংখ্যা মোট ৬৩৫।

এই ভোটারের সকলে দুই জন গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যকে ভোট দেবেন। দুটো আলাদা আলাদা ব্যালট পেপারে। সেই কারনে এই কেন্দ্রে গ্রাম পঞ্চায়েতে সব দলই জোড়া প্রার্থীর মনোনয়ন জমা দেওয়ার কাজ শুরু করেছেন। প্রথম ও দ্বিতীয় সর্বাধিক ভোট পাওয়া প্রার্থীরা এই কেন্দ্র থেকে গ্রাম পঞ্চায়েত নির্বাচিত হবেন।

কিন্তু এমন ঘটনা কি রাজ্যে একমাত্র আলিপুরদুয়ার জেলাতেই ঘটছে? আলিপুরদুয়ারের জেলা নির্বাচন আধিকারিক দেবী প্রসাদ করণম বলেন, ‘‘সেটা আমাদের জানা নেই। হয়ত হতে পারে। তবে আলিপুরদুয়ার জেলাতে একমাত্র মাদারিহাটের ৪০ নম্বর পার্টেই এমন ঘটনা ঘটছে। প্রশাসনিক ভাষায় আমরা এই কেন্দ্রটিকে বলছি ‘ডাবল মেম্বার কনস্টিটিউয়েন্সি’।’’