তেহরান: ইরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়াতে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আমেরিকার উত্থাপিত প্রস্তাবের উপর ভোটাভুটি এক সপ্তাহের জন্য পিছিয়ে গেল। রাষ্ট্রসংঘে নিযুক্ত মার্কিন স্থায়ী প্রতিনিধি কেলি ক্রাফট এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি সৌদি নিউজ চ্যানেল আল-আরাবিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ইরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা যাতে বহাল থাকে সেই প্রস্তাবের খসড়ার উপর ভোটাভুটি আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে।প্রস্তাবটির পক্ষে আপাতত চিন ও রাশিয়ার সমর্থন না মেলায় ওয়াশিংটন ভোটাভুটি পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কেলি ক্রাফট তার দেশের তৈরি খসড়ার পক্ষে চিন ও রাশিয়াকে টানার লক্ষ্যে ওই সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদেরকে এখন ‘ইরানবিরোধী অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা নবীকরণ’ অথবা ‘মধ্যপ্রাচ্যকে নিরাপত্তাহীনতা রাখা’র মধ্যে যেকোনো একটিকে বেছে নিতে হবে।

আমেরিকার নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সময় গতকালে (মঙ্গলবার) প্রস্তাবটির খসড়া ভোটাভুটির জন্য নিরাপত্তা পরিষদে তোলা হবে বলে গত কয়েকদিন ধরে বলা হচ্ছিল।

ইরানের উপর রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের যে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে তা আগামী ১৮ অক্টোবর উঠে যাওয়ার কথা। ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে নিরাপত্তা পরিষদে পাস হওয়া ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কথা বলা হয়েছে।

কিন্তু মার্কিন সরকার এ নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানোর চেষ্টা করছে। যদিও ভেটো দেওয়ার ক্ষমতাসম্পন্ন দুই দেশ চিন ও রাশিয়া আমেরিকার এই পরিকল্পনার ঘোর বিরোধী। কারণ বেইজিং ও মস্কো উভয়েই জানিয়েছে, তারা চোখ বন্ধ করে এ প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেবে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।