নয়াদিল্লি: ভারতের ভোডাফোনের ভবিষ্যত যে ক্রমশ অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে, তা অনেকেরই জানা। তবে বৃহস্পতিবার সামনে এল আরও ভয় পাওয়ার মত একটা সংখ্যা। গত তিন আসে ভোডাফোনের যে ক্ষতি হয়েছে, তা সত্যিই চোখ কপালে তুলে দেবে।

জুলাই থেকে সেপ্টেম্ৱরে ভোডাফোনের লোকসান হয়েছে ৫০,৯২২ কোটি টাকা। চলতি আর্থিক বছরের প্রথম তিন মাসের হিসেবে ৪,৮৭৪ কোটি টাকা লোকসানের মুখ দেখেছিল এই টেলিকম সংস্থাটি। ত্রৈমাসিকের হিসেবে এই প্রথম কোনও ভারতীয় সংস্থার এত টাকার লোকসান হল।

ভারতের মাটিতে পরিষেবা থেকে আয় ক্রমশ কমছে ভোডাফোন আইডিয়ার। গত বছর দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে তাদের রাজস্ব বাবদ আয় হয়েছিল ১১,২০ কোটি। এই বছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে ভোডাফোন আইডিয়ার আয় কমে ঠেকেছে ১০,৮৪৪ কোটিতে। বিশেষত, কেন্দ্রের ধার্য ‘অ্যাডজাস্টেড গ্রস রেভেনিউ’ পদ্ধতি এয়ারটেল. ভোডাফোন-আইডিয়ার মতো ধুঁকতে থাকা টেলিকম সংস্থাগুলির নাভিঃশ্বাস তুলে দিয়েছে।

স্পেকট্রাম ব্যবহার ও লাইসেন্স ফি নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছিল, তাতেই বিপদে পড়ে ভোডাফোন-আইডিয়া। এই সংস্থাকে বকেয়া প্রায় ১.৪ লক্ষ কোটি টাকার দেনা মেটাতে হবে টেলিকম দফতরকে। এর মধ্যে এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ভোডাফোন আইডিয়া-কে প্রায় ৩৯,০০০ কোটি টাকা দিতে হবে। ফলে, চলতি বছরে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও আধুনিকীকরণের জন্য রাইটস্ ইস্যুর মাধ্যমে ভোডাফোন আইডিয়া যে ২৫,০০০ কোটি টাকা তুলেছিল, তার সবটাই চলে যাবে সরকারের দেনা মেটাতে। দু’বছর আগে ভোডাফোন ইন্ডিয়া ও আইডিয়া সেলুলার-এর সংযুক্তিকরণের ঘোষণার পর থেকে টানা লোকসান করে চলেছে ভোডাফোন আইডিয়া।

কিছুদিন আগেই একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ভোডাফোন সব কিছু গোছ গাছ করে নিয়ে যে কোনও দিনই চলে যেতে পারে৷ এর কারণ হল সংস্থার ক্ষতি ক্রমশ বৃদ্ধি পাওয়া এবং টেলিকম ক্ষেত্রে বাজারে এই সংস্থার অংশ কমে যাওয়ায়৷ এই দুটি কারণে ভোডাফোন আইডিয়ার ব্যালান্স শিটে প্রভাব পড়ছে এবং এই সংস্থাটি কোনও তহবিল তোলার ক্ষেত্রে বাধা পাচ্ছে ৷ এদিকে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ গ্রাহক কমে যাচ্ছে এই সংস্থার৷

এরপরই এই টেলিকম সংস্থার তরফে বলা হয়, ভোডাফোন সাময়িক ভাবে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন ঠিকই, তবে সে জন্য ঋণ কমানোর কোনও আবেদন কারও কাছে তারা করেনি। আর ভারত থেকে ব্যবসা বন্ধের রাস্তাতেও তারা হাঁটছে না বলে জানানো হয়।