নয়াদিল্লি: সমালোচনার জেরে আইপিএল থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা VIVO৷ আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণের স্পনসরশিপ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেও চুক্তি অনুযায়ী বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগে আগামী বছর স্পনসর করার কথা জানিয়েছে চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা। শীঘ্রই চলতি বছর আইপিএলের নতুন স্পনসরের নাম ঘোষণা করতে চলেছে বিসিসিআই৷

সীমান্তে ভারত ও চিন ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে চিনা পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়া হয়৷ তবুও রবিবার আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা ভিভো’কে চুক্তি অনুযায়ী টাইটেল স্পনসর হিসেবে রেখে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ কিন্তু সোশাল মিডিয়ার বোর্ডের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠায় নিজেরাই চলতি বছর আইপিএলের স্পনসর থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় ভিভো৷ ফলে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে শুরু হতে চলা ২০২০ আইপিএলে নতুন স্পনসর দেখা যাবে৷ আগামী তিন দিনের মধ্যেই নতুন স্পনসরের জন্য টেন্ডার ডাকতে চলেছে বিসিসিআই৷

২০১৭ সালের চিনা মোবাইল সংস্থা ভিভো’র সঙ্গে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হিসেবে পাঁচ বছরের চুক্তি হয়৷ চুক্তি অনুযায়ী প্রতি বছর বিসিসিআই-কে ভিভো দেয় ৪৪০ কোটি টাকা৷ পাঁচ বছরের চুক্তি বোর্ডকে মোট ২,১৯৯ কোটি টাকা দেবে চিনা এই মোবাইল সংস্থা৷ কিন্তু পাঁচ বছরের মধ্যে মাত্র দু’বছর আইপিএল-কে স্পনসর করেছে ভিভো৷ বাকি রয়েছে আরও তিন বছরে৷ তবে চলতি বছরে সরে দাঁড়াল আগামী বছর থেকে বাকি তিন বছর অর্থাৎ ২০২১, ২০২২ এবং ২০২৩ পর্যন্ত ভিভো আইপিএলে টাইটেল স্পনসর থাকবে বলে জানা গিয়েছে৷

গত জুনে লাদাখ সীমান্তে চিনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহিদ হয়েছেন। তারপর থেকেই দেশজুড়ে চিনা পণ্য বয়কটের দাবি ওঠে। এমনকী টিকটক, হ্যালো, শেয়ার ইটের মতো একগুচ্ছ চিনা অ্যাপ ভারতে নিষিদ্ধ করার কথা ঘোষণা করা হয়৷ পাশাপাশি সারা দেশ চিনের বিরোধিতায় সরব হয়৷ সেখানে আইপিএলের স্পনসর হিসেবে চিনা কোম্পানিকে রেখে দেওয়া বোর্ডের সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা হয় দেশজুড়ে৷ সোশাল মিডিয়া থেকে রাজনৈতিকমহলে এ নিয়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে। #BycottIPL নেটদুনিয়ায় ট্রেন্ডিং হয়ে যায়৷

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) অর্থনৈতিক শাখা স্বদেশী জাগরণ মঞ্চ (এসজেএম) আইপিএলে স্পনসর হিসেবে রেখে দেওয়ার বোর্ডে সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে জনপ্রিয় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বয়কট করার আহ্বান জানায়৷ তাদের তরফে জানানো হয়, আমরা ভারত সরকারকে অনুরোধ করছি আইপিএল কাউন্সিলকে সতর্ক করার জন্য এবং তারা যদি তা না-মানে তবে সরকারের উচিত এই টুর্নামেন্টে স্বীকৃতি প্রত্যাহার করা।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা