ঢাকা: ” এখন বাসায় মেহমান আসাও নিষেধ। দয়া করে বাসায় থাকুন। ” চমকপ্রদ পোস্টার। কারণ, করোনা সংক্রমণ রুখতে হবে।

অতিথিদের আর স্বাগত নয়। এখনই বাড়িতে কেউ আসবেন না। এমনই পোস্টার দেখা যাচ্ছে রাজধানী শহরের বিভিন্ন বাড়িতে। করোনা সংক্রমণ রুখতে এমনই অভিনব পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। যে ঢাকাবাসী অতিথিদের আপ্যায়ন করতে মুখিয়ে থাকেন তাঁরাই এখন ভাইরাস আতঙ্কে মুখ ফিরিয়েছেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়াবহ পরিস্থিতি তে পড়তে পারে দক্ষিণ এশিয়া। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) আরও জানিয়েছে ভারত, বাংলাদেশে করোনা হামলায় প্রবল ক্ষতির সম্ভাবনা। বাংলাদেশ রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে।

অথচ এই বাংলাদেশেই করোনা সমক্রমণ রুখতে কোয়ারেন্টাইন থেকে পালানোর হিড়িক। হয়েছে হাজারে হাজারে মানুষের অংশগ্রহণে উপনির্বাচনের মতো বিতর্ক দেখা দিয়েছে।

বিবিসি জানাচ্ছে, বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ রুখতে যে কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা চালু করেছে সরকার, সেটি না মানার প্রবণতা খুব বেশি। এরকমই ঘটনা দেখা যাচ্ছে ভারতেও। রিপোর্টে বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণে বিশ্ব জুড়ে মৃত্যু মিছিলের সংবাদ দেখে জন সংষ্পর্শ এড়িয়ে চলার জন্য অনেকেই বাড়িতে অতিথি আসা নিষিদ্ধ করছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমনই বেশ কয়েকটি পোস্ট দেয়া হয়েছে। এই সব পোস্টে যেখানে বাড়িতে অতিথি হিসেবে না যাওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। কোনও আমন্ত্রণ ছাড়া কারও আসার ব্যাপারেও নিরুৎসাহ দেওয়া হয়েছে।

কেউ ফেসবুকে লিখেছেন- “বাইরের মানুষ আনাগোনা এখনই কমিয়ে দিন। মেহমানদারী করা বাঙালীদের ঐতিহ্য, তবে এই ঐতিহ্য এখন বিসর্জন দেওয়া আবশ্যক।“ ইতিমধ্যে বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত দু জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত ২৪ জন। সুস্থ হয়েছেন তিন জন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I