কলকাতা: মহামারীর পর পৃথিবীর নকশাই যেন বদলে গিয়েছে। বাড়িরই বাইরে যেতে ভয়, অনুষ্ঠানে যেতেও ভয়। আগে যেখানে অনুষ্ঠান বাড়ি মানেই কোলাহলে গমগম করতো বাড়ি, এখন সেই কায়দায় এসেছে পরিবর্তন। এসেছে ভার্চুয়াল বিয়ের অনুষ্ঠান। সেখানেও কিন্তু নিমন্ত্রণের অভাব নেই। শুধু নেই বিয়ের সেই হৈচৈ। তবে ভার্চুয়াল বিয়েবাড়ি বলে কি আপনি সাজবেন না? নইলে তো বিয়েবাড়ির সেই আমেজটাই আসবে না। তবে যেহেতু আপনি সেখানে স্বশরীরে যাননি তাই সেখানে আপনার মেকআপ একটু অন্যরকম তো হবেই। অন্য আমেজে সাজুন এবারের বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠানে।

১. মেকআপ: স্ক্রিনে সবসময় ব্রাইট রঙ বেশি ভালো লাগে। তাই ব্রাইট রঙের কুর্তি বা শাড়ি পরুন। আবার মেকআপ গলে যাওয়ার ভয়ও নেই বলে ঘরের তাপমাত্রাকে নিজের মতো এডজাস্ট করতে পারবেন। অল্প ফাউন্ডেশন লাগান। আপনার আসল স্কিন যেন ঢেকে না যায়। ন্যুড শেডের মেকআপ করতে পারেন চোখে। পিঙ্ক, ব্রোঞ্জ, গোল্ডেন, শিমারি লুক দিয়ে সাজতে পারেন। অল্প কাজল লাগান ও আইলাইনারটিকে টেনে পড়ুন। স্মোকি আই করতে পারেন ট্রাই। মুখে যেন একটা মিষ্টি ও সফ্ট ভাব থাকে। ব্রাইট শাড়ি বা কুর্তি পরলে সেক্ষেত্রে একটু হালকা শেডের লিপস্টিক লাগান।

২. হেয়ার স্টাইল: সাদামাটা চুলের স্টাইল রাখুন। হালকা হাতে খোঁপা করুন বা বেনুনি করে ঝুলিয়ে দিন জুঁই বা রজনীগন্ধার মালা। আবার মেসি বানও করতে পারেন। আবার উঁচু করে ঘাড়ের কাছে একটা খোঁপা করতে পারেন। চুল পুরোটা কার্ল না করে চুলের নীচের সিটি কার্ল করুন। বাকিটা ব্রাশ করে নিয়ে ছেড়ে রাখুন।

আরো পোস্ট-  বিয়ের মরশুমে দেখে নিন কোন গয়না ট্রেন্ডে

৩. টিপ পরতে পারেন। কালো টিপ বা লাল একটা উজ্জ্বল টিপ পরুন। কানের দুলটি ঝুমকো পরুন। গলায় সরু চেন বা সরু নেকলেস মানাবে এই সাজের সঙ্গে। শাড়ি বা কুর্তিতে গোল্ডেনের ছোঁয়া থাকলে গোল্ডেন চুড়ি পরতে পারেন। বা কালো ভেলভেটের চুড়িও মানাবে। নাকছাবি পরতেও পারেন চাইলে। বুগারিও পরতে পারেন যা আজকাল ফ্যাশনে ট্রেন্ডে রয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।