দুবাই: পাঁচ মাস মাঠের বাইরে থেকেও আইসিসি ওয়ান ডে র‌্যাংকিংয়ে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শীর্ষস্থান ধরে রাখলেন বিরাট কোহলি৷ দু’ নম্বরে রয়েছেন টিম ইন্ডিয়ায় তাঁর ডেপুটি রোহিত শর্মা। বুধবার প্রকাশিত সর্বশেষ ব়্যাংকিং তালিকায় ভারতীয় পেসার জসপ্রীত বুমরাহ বোলারদের মধ্যে ২ নম্বরে রয়েছেন।

৮৭১ পয়েন্ট নিয়ে numero uno status অর্জন করেছেন কোহলি৷ সাত মাস মাঠের বাইরে থাকা রোহিত ৮৫৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন৷ তিন নম্বরে রয়েছেন পাকিস্তানের বাবর আজম৷ তাঁর পয়েন্ট ৮২৯৷

তবে ব্যাটিং তালিকায় পরিবর্তন ঘটিয়েছেন আইরিশ অধিনায়ক অ্যান্ড্রু বালবর্নি৷ মঙ্গলবার সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ডের সিরিজের শেষ ম্যাচে ১১৩ রানের ইনিংস খেলে দলকে জেতানোর পাশাপাশি আইসিসি ওয়ান ডে ব়্যাংকিংয়ে চার ধাপ উন্নতি করে ৪২তম স্থানে পৌঁছেন। এছাড়া এই ম্যাচে আরও এক সেঞ্চুরিকারী আইরিশ ব্যাটসম্যান পল স্টার্লিং ১৪২ রানের ইনিংস খেলে ২৬ নম্বরে উঠে এসেছেন৷

আর ইংরেজ অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান যিনি চূড়ান্ত ওয়ান ডে ম্যাচে সেঞ্চুরি করে ২২ তম স্থানে রয়েছেন৷ দ্বিতীয় ম্যাচে ৮২ রানের ইনিংস খেলা জনি বেয়ারস্টো ১৩ তম স্থানে উঠে এসেছেন। স্যাম বিলিংস ১৩২ রান সংগ্রহ করে ১৪৬ তম স্থানে পুনরায় র‌্যাংকিংয়ে প্রবেশ করেছেন।

বোলারদের মধ্যে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন নিউজিল্যান্ডে ট্রেন্ট বোল্ড৷ ৭১৯ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থান ধরে রেখেছেন টিম ইন্ডিয়ার ডানহাতি পেসার বুমরাহ৷ বোলিং চার্টে আয়ারল্যান্ডের ফাস্ট বোলার ক্রেইগ ইয়ংয়ের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সদ্যসমাপ্ত সিরিজে ছয় উইকেট নিয়ে ৪০ ধাপ এগিয়ে কেরিয়ারের সেরা ৮৯তম স্থানে উঠে এসেছেন৷ আর মার্ক অ্যাডায়ার ছ’ ধাপ উপরে উঠে ১৩৮তম স্থানে রয়েছেন৷ জোশুয়া লিটল ৩৮ ধাপ এগিয়ে ১৪৬ নম্বরে রয়েছেন৷

ইংল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে লেগ-স্পিনার আদিল রশিদ সিরিজের পাঁচটি উইকেট নিয়ে ২৯তম থেকে ২৫তম স্থানে উঠে এসেছেন৷ আর বাঁ-হাতি পেসার ডেভিড উইলির আট উইকেট, যার মধ্যে উদ্বোধনী ম্যাচে ৩০ রানের বিনিময়ে পাঁচ উইকেট ছিল৷ সিরিজ পুরষ্কারের পাশাপাশি তিনি ছ’ধাপ এগিয়ে ৫১তম স্থানে পৌঁছেছেন।

ইংল্যান্ডের সিরিজ জয় আইসিসির পুরুষদের বিশ্বকাপ সুপার লিগে তাদের ২০ পয়েন্ট দিয়েছে৷ ২০২০ সালে ভারতে পরবর্তী বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করার জন্য সুপার লিগ খেলছে৷ সিরিজ হারলেও আয়ারল্যান্ডের ঝুলিতে রয়েছে ১০ পয়েন্টে। বিশ্বকাপের জন্য ভারত ও সুপার লিগ থেকে সরাসরি জায়গা করে নেবে সাতটি দল৷ আর বাকি দু!টি দল কোয়ালিফায়ারের মাধ্যমে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন করবে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।