মুম্বই: টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলির ডাকনাম ‘চিকু’ হলেও ভারতীয় দলের ড্রেসিংরুমে তাঁকে ফিট কোহলি বলে ডাকা হয়ে থাকে৷ কারণ বিরাটের নেতৃত্বেই শুরু হয়েছে ফিটনেস ক্লাচার৷ ফলে সবসময় স্বাস্থ্যসচেতন থাকেন ক্যাপ্টেন কোহলি৷ কিন্তু মুম্বইয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২৩৫ রানের ইনিংস খেলে উঠে চিকেন বার্গার, এক প্লেট স্ন্যাক্স, চকোলেট শেক ও রুটি খেলেছিলেন বিরাট৷

নিজেকে ফিট রাখতে একদম কড়া ডায়েটের মধ্যে থাকেন ভারতীয় ক্রিকেটের ফার্স্ট ম্যান। গত কয়েক বছরে কখনই ডায়েটের বাইরে গিয়ে তেমন কিছু করেননি৷ তিনি। সম্প্রতি ইন্ডিয়া টুডে-কে দেওয়া ইন্টারভিউ দিতে গিয়ে কোহলি জানান, ২০১৬ মুম্বই টেস্টে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ডাবল সেঞ্চুরি করার পরে ওই রকম গরমেও চিকেন বার্গার, এক প্লেট স্ন্যাক্স, চকোলেট শেক ও রুটি খেলেছিলেন বিরাট৷

কোহলি বলেন, ‘২৩৫ রানের বড় স্কোর করার পর আমি একদম নিঃশেষ হয়ে গিয়েছিলাম৷ প্রচন্ড গরমে আমার শরীর যেন “ভাজাভাজা” হয়ে গিয়েছিল। সাধারণত খেলার সময় আমি খুব একটা বেশি ভারি কিছু খাই না। ওই সময় আমি কলা, জল আর হালকা খাবার খেয়ে থাকি। তাই বসু স্যর আমাকে বলেছিলেন, খেলার শেষে আজকে রাতে তুমি যা চাও তাই খেতে পারো। আমি সেদিন হোটেলে ফিরে একটা চিকেন বার্গার অর্ডার করেছিলাম। সঙ্গে রুটিও নিয়েছিলাম। মনে হল ঠিক আছে, একটা রুটি আমি খেতেই পারি। তারপর এক প্লেট ভাজা এবং তার সঙ্গে একটা চকোলেট শেক নিয়েছিলাম। আমি জানতাম, ওই দিন আমার শরীরের ওটা দরকার ছিল৷’

তিনি আরও বলেন, ‘শরীরের প্রয়োজন অনুযায়ী একটা দারুণ খাবার খাওয়া যেতেই পারে৷ তবে প্রত্যেকদিন নয়।’ গত কয়েক বছর ধরে ফিটনেসের ওপর জোর দিয়েছেন বিরাট৷ ফিটনেস ধরে রাখতে মাঝে মাঝে নিজের ওয়ার্ক-আউট করার ভিডিও ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন কোহলি। ৩১ বছরেও রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে কোহলি টিম ইন্ডিয়ার অন্যতম দ্রুত রানার। সদ্যসমাপ্ত ইডেনে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পিঙ্ক বলে ডে-নাইট টেস্টে সেঞ্চুরি করেছেন কোহলি৷ ভারতের মাটিতে প্রথম দিন-রাতের টেস্টে সেঞ্চুরি করে ইতিহাস গড়েন তিনি৷ কারণ তিনিই প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান, যিনি পিঙ্ক বল টেস্টে সেঞ্চুরি করেছেন৷ কোহলির ব্যাটিংয়ে ভর করে বাংলাদেশকে ইনিংস ও ৪৬ রানে হারায় ভারত৷