ম্যাঞ্চেস্টার: ডেপুটি রোহিত শর্মার ধ্রুপদী শতরান, কেএল রাহুলের দায়িত্বশীল অর্ধশতরান। ওপেনিং জুটিতে ওঠা ১৩৬ রানে ভর করে শুরু থেকেই রানেই পাহাড়ে চড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। তবে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে সাময়িক রানের গড়ে খামতি পরিলক্ষিত হলেও অধিনায়কের অর্ধশতরানে ভর করে পাকিস্তানকে ফের ৩৫০ প্লাস রানের বোঝা চাপিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে টিম ইন্ডিয়া।

তবে শুধু অর্ধশতরানই নয়, এদিন ৫৭ রান পূর্ণ করার সঙ্গে সঙ্গেই নয়া নজির গড়লেন বিরাট কোহলি। সচিন তেন্ডুলকরকে ছাপিয়ে দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান ডে ক্রিকেটে ১১ হাজার রানের মালিক বনে গেলেন ভারত অধিনায়ক। এর আগে দ্রুততম হিসেবে ২৭৬ ইনিংসে ১১ হাজার এলিট ক্লাবের সদস্য হওয়ার রেকর্ড ছিল মাস্টার-ব্লাস্টারের ঝুলিতে। সেই নজির ভেঙে মাত্র ২২২ ইনিংসেই রেকর্ড ছুঁলেন বিরাট।

এদিন ৫১ বলে চলতি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় অর্ধশতরানটি পূর্ণ করলেন ভারত অধিনায়ক। ভারতের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান এই মাইলস্টোন ছুঁয়েছেন সৌরভ৷ ২৮৮টি ইনিংসে ১১ হাজার রানের গণ্ডি টপকেছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক৷ বিশ্বের মধ্যে তিন নম্বরে রয়েছেন সৌরভ৷ দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রাক্তন অজি অধিনায়ক রিকি পন্টিং৷ এই মাইলস্টোন ছুঁতে পন্টার নিয়েছেন ২৮৬টি ইনিংস৷

অধিনায়কের আগে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে স্নায়ুর চাপ সামলে দুরন্ত শতরান রোহিত শর্মার৷ এমনিতে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানে প্রবল চাপ থাকে দু’দেশের ক্রিকেটারদের উপর৷ তার উপর বিশ্বকাপে অপরাজিত থাকার রেকর্ড নিয়ে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে খেলতে নামায় রোহিতদের উপর চাপটা একটু বেশিই ছিল৷ তবে হাইভোল্টোজ ম্যাচে মাঠা ঠাণ্ডা রেখে আগুনে ইনিংস খেলেন রোহিত৷ লোকেশ রাহুলকে নিয়ে দলকে শক্ত ভিতে বসিয়ে দেওয়া ছাড়াও ব্যক্তিগত শতরানের গণ্ডি পার করে যান অনায়াসে৷ সেই সঙ্গে গড়েন একঝাঁক নজির৷

৩৪ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরির গণ্ডি পার করেন রোহিত৷ ওয়ান ডে কেরিয়ারের সব থেকে কম বলে পঞ্চাশ রান টপকে যাওয়ার ব্যক্তিগত নজির গড়েন তিনি৷ পরে ৮৫ বলে তিন অঙ্কের রানে পৌঁছে যান রোহিত৷ এটি তাঁর ওয়ান ডে কেরিয়ারের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরি৷ শতরানের পথে রোহিত ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা মারেন তিনি৷

অর্ধশতরান পূর্ণ করার সঙ্গে সঙ্গেই নভজোৎ সিং সিধু, সচিন তেন্ডুলকর ও যুবরাজ সিংয়ের সঙ্গে এলিট ক্লাব ঢুকে পড়েন ‘হিটম্যান’ রোহিতও। চতুর্থ ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচেই অর্ধশতরানের নজির গড়েন তিনি। তবে ১৪০ রানের মাথায় শট নির্বাচনে ভুল করে হাসান আলির শিকার হন তিনি।