বেঙ্গেলুরু: আইপিএলের বাইশ গজে উত্তাপ ছড়ালেন বিপক্ষ দলের দুই কাপ্তান বিরাট-অশ্বিন৷

বুধবার বেঙ্গালুরুতে আরসিবি বনাম কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ম্যাচের ঘটনা৷ টস জিতে কোহলিদের ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান অশ্বিন৷ এরপর কোহলি-পার্থিব জুটিতে বিধংসী শুরুয়াত আরসিবি’র৷ জুটিতে ওঠে ৩৫ রান৷ শামির ওভারে কোহলি যদিও ১৩ রানের মাথায় মনদীপের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন৷ বিরাট আউট হতে আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে কোহলিকে বিদায় জানান অ্যাশ৷ পরে পার্থিবকে ৪৩ রানে সাজঘরে ফেরান পঞ্জাব অধিনায়ক রবিচন্দ্রন অশ্বিন৷ ম্যাচে ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ১৫ রান খরচ করে ১ টি উইকেট পান অশ্বিন৷

আরও পড়ুন-জন্মদিনেই বোর্ডের নোটিশ মাস্টার ব্লাস্টারকে

অন্যদিকে ৪৪ বলে এবিডি’র ৮২ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে ভর করে ২০২ রানের পাহাড় খাড়া করে আরসিবি৷ জবাবে রাহুল-পুরানরা চেষ্টা করলেও শেষ ওভারে ম্যাচ জিততে পঞ্জাবের দরকার ছিল ২৭ রান৷ ওভারের শুরুতেই উমেশকে ওভার বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ম্যাচ জমিয়ে দেন অশ্বিন৷ পরের বলেই বাউন্ডারির ধারে অশ্বিনের(৬রান) ক্যাচ সম্পূর্ণ করে দলকে লড়াইয়ে ফেরান বিরাট৷

আরও পড়ুন- এক হাতের ছক্কায় বল মাঠের বাইরে পাঠালেন এবিডি, ভাইরাল ভিডিও

পার্থিবকে আউট করে আগ্রাসীভাবে ম্যাচে ফেরার সেলিব্রেশন করেছিলেন অশ্বিন৷ পাল্টা পঞ্জাব অধিনায়কের ক্যাচ তালুবন্দি করে ‘বিরাট’ আগ্রাসনে ফেটে পড়েন কোহলি৷ অ্যাশের ক্যাচ সম্পূর্ণ করে বল মাটিতে ছুঁড়ে ফেলে আগ্রাসী ভাষায় পঞ্জাব কাপ্তানকে ‘সেন্ড অফ’ জানান ভিকে৷ ম্যাচের মাঠে দুই ভারতীয় ক্রিকেটারের একে অন্যকে বিদায় জানানোর আগ্রাসী ভঙ্গি উত্তাপ ছড়িয়েছে৷

ম্যাচ শেষে দুই অধিনায়কই অবশ্য জানিয়েছেন, ‘বাইশ গজে প্রতি মুহূর্তে ম্যাচের রঙ পাল্টে যায়৷ হাইভোল্টেজ পরিস্থিতিতে মাঠে আবেগ লুকিয়ে রাখা সত্যিই কঠিন৷ তবে দু’জনেই দুজনের প্রতি যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল৷’