মোহালি: দুর্ধর্ষ ক্যাচ তারপর ব্যাট হাতে অধিনায়কোচিত ইনিংসে দলকে কেবল জয় এনে দেওয়া নয়। মোহালিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত মাইলস্টোনও সেট করলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ডেপুটি রোহিত শর্মাকে টপকে এদিন কুড়ি-বিশের ক্রিকেটে সর্বাধিক রান সংগ্রাহক হয়ে গেলেন ভারত অধিনায়ক।

এদিন ম্যাচ শুরুর আগে টি-২০ ক্রিকেটে রান সংগ্রহের নিরিখে রোহিত শর্মার চেয়ে ৫৩ রানে পিছিয়ে ছিলেন কোহলি। এদিন মাঠে নামার আগে ৯৬ ম্যাচে ৩২.৭২ ব্যাটিং গড়ে রোহিতের সংগ্রহ ছিল ২৪২২ রান। সেখানে ৪৯.৩৫ ব্যাটিং গড়ে ২৩৬৯ রান সংগ্রহ করে দ্বিতীয়স্থানে ছিলেন কোহলি। কিন্তু মোহালিতে এদিন বড় রানের ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হন ‘হিটম্যান’। ১২ বলে মাত্র ১২ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন টিম ইন্ডিয়ার সহ-অধিনায়ক।

উলটোদিকে দলের ৭ উইকেটে দুরন্ত জয়ে ব্যাট হাতে এদিন সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন অধিনায়ক বিরাট। ৫২ বলে ৭২ রানে অপরাজিত থেকে দলকে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন ভারত অধিনায়ক। মোহালিতে মাত্র ১২ রানে আউট হওয়ার পর রোহিতের সংগ্রহে সর্বমোট রানসংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ২,৪৩৪। অর্থাৎ, ব্যাট হাতে এদিন ৬৫ রানের গন্ডি পেরোতেই রোহিতকে টপকে টি-২০ ক্রিকেটে সর্বাধিক রান সংগ্রাহক বনে যান বিরাট ‘দ্য রানমেশিন’। ভারত অধিনায়কের ম্যাচ জেতানো ইনিংস এদিন সাজানো ছিল ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায়।

পাশাপাশি টি-২০ ক্রিকেটে এদিন তাঁর ব্যাটিং গড়কে পঞ্চাশের উপর নিয়ে যান বিরাট। বিশ্বক্রিকেটে বিরাটই এখন একমাত্র ব্যাটসম্যান, তিনটি ফর্ম্যাটেই যার ব্যাটিং গড় পঞ্চাশোর্ধ্ব। এদিনের ম্যাচের পর ৭১ ম্যাচে বিরাটের সর্বমোট রানসংখ্যা বেড়ে হল ২,৪৪১। পাশাপাশি ৯৭ ম্যাচে রোহিতের সংগ্রহে ২,৪৩৪ রান। অর্থাৎ, টি-২০ ক্রিকেটে রান সংগ্রহের নিরিখে এই মুহূর্তে রোহিতের চেয়ে ৭ রানে এগিয়ে অধিনায়ক বিরাট।

বিরাট ছাড়াও এদিন ভারতের জয়ে ব্যাট হাতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করেন শিখর ধাওয়ান। ১৫০ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে ৩১ বলে এদিন গব্বরের ৪০ রানের ইনিংস সাজানো ছিল ৪টি চার ও ১টি ছয়ে। লং অনে ডেভিড মিলারের চোখ-ধাঁধাঁনো ক্যাচে ডাগ-আউটে ফেরেন তিনি। ব্যর্থ ঋষভ পন্তের সংগ্রহ মাত্র ৪ রান। অধিনায়কের সঙ্গে অপরাজিত থেকে দলকে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন শ্রেয়স আইয়ার। ১৪ বলে ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।

এর আগে মোহালিতে এদিন প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান তোলে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৩৭ বলে ৫২ রান করেন অধিনায়ক ডি’কক। ৪৩ বলে ৪৯ রান আসে তেম্বা বাভুমার ব্যাট থেকে। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ২টি উইকেট নেন দীপক চাহার। ১টি করে উইকেট নেন নভদীপ সাইনি, রবীন্দ্র জাদেজা ও হার্দিক পান্ডিয়া।