দুবাই: বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়মক সংস্থা বেছে নিতে চলেছে এই দশকের সেরা ক্রিকেটার। সাত জনের সেই তালিকায় রয়েছেন মাত্র ২ ভারতীয়। এই দলে জায়গা হয়নি মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রোহিত শর্মা৷ সাত জনের তালিকায় রয়েছেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং অফ-স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

সাত জনের দলে নেই ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ধোনি এবং সাদা বলে বিশ্বক্রিকেটে বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান রোহিত৷ তবে দশকের সেরা ক্রিকেটারের তালিকায় জায়গা না-হলেও ওয়ান ডে ক্রিকেটে এই দশকের সেরা ক্রিকেটারের তালিকায় রয়েছেন দু’জনেই। এই তালিকাতেও রয়েছেন কোহলিও৷ তিন ভারতীয় ছাড়াও এই তালিকায় রয়েছেন শ্রীলঙ্কার লসিথ মালিঙ্গা ও কুমার সঙ্গকারা, অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক এবং দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি’ভিলিয়ার্স।

আইসিসি দশকের সেরা ক্রিকেটারের সাত জনের যে তালিকা প্রকাশ করেছে তা হল, বিরাট কোহলি ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন (ভারত), জো রুট (ইংল্যান্ড), কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড), স্টিভ স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া), এবি ডি’ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা) এবং কুমার সঙ্গকারা (শ্রীলঙ্কা)৷

দশকের সেরা টেস্ট খেলোয়াড়ের তালিকায় রয়েছেন বিরাট কোহলি (ভারত), জো রুট ও জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড), কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড), স্টিভ স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া), রঙ্গনা হেরাথ (শ্রীলঙ্কা) ও ইয়াসির শাহ (পাকিস্তান)৷

ওয়ান ডে ক্রিকেটে এক দশকের দলে রয়েছেন বিরাট কোহিল, মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রোহিত শর্মা (ভারত), কুমার সঙ্গাকারা ও লসিথ মালিঙ্গা (শ্রীলঙ্কা), মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া) এবং এবি ডি’ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা)৷

এক দশকের সেরা টি-২০ ক্রিকেটারের মনোনয়ন পেয়েছেন বিরাট কোহিল ও রোহিত শর্মা (ভারত), ক্রিস গেইল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), অ্যারন ফিঞ্চ (অস্ট্রেলিয়া), ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা) এবং রশিদ খান (আফগানিস্তান)৷

মহিলাদের ক্রিকেটে দশকের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়িকা মিতালি রাজ। ওয়ান ডে ক্রিকেটেও দশকের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়েও রয়েছেন তিনি। এই তালিকায় রয়েছেন আরও এক ভারতীয়৷ তিনি হলেন বাংলার ঝুলন গোস্বামী। তবে দশকের সেরা টি-২০ খেলোয়াড়ের তালিকায় নেই কোনও ভারতীয়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।