বেঙ্গালুরু: প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এবং বর্তমান ভারত অধিনায়ক হিসাবে বিরাট কোহলির মধ্যে মিল ও পার্থক্য ব্যাখ্যা করলেন ভেঙ্কটেশ প্রসাদ।

টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন ডানহাতি পেসার বলেন, সৌরভ তাঁর দুর্দান্ত নেতৃত্বের গুণে ভারতীয় দলকে অন্য রূপ দিয়েছিলেন৷ অধিনায়ক এবং খেলোয়াড় উভয় ক্ষেত্রেই দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন৷ সৌরভের নেতৃত্বে যিনি শেষ ম্যাচ খেলেছেন, সেই প্রসাদ মনে করেন যে বিরাটের প্যাশন দারুণ৷ কিন্তু কোহলির আক্রমণাত্মক রূপ কখনও সৌরভের মধ্যে তিনি দেখেননি৷

টাইমস অফ ইন্ডিয়া-কে প্রসাদ জানিয়েছেন, ‘আমি মনে করি সৌরভ এবং বিরাট একই রকমের লাইনের৷ কারণ সৌরভও যখন অধিনায়কত্ব গ্রহণ করেছিলেন তখন যখন দলের চারপাশে অনেক নেতিবাচক বিষয় ছিল৷ দ্বিতীয় সৌরভকে সত্যই দলকে রূপান্তর করতে হয়েছিল। আমার মনে হয় এর জন্য বিশাল প্রয়োজন ছিল নেতৃত্ব দেওয়ার দক্ষতা।’

তবে প্রসাদ এও বলেন, ‘তবুও কিছু ত্রুটি ছিল। যখন সৌরভের ফিটনেসের কথা আসে, তার ফিল্ডিং দক্ষতা যা কিছু হোক না কেন, তবে এ গুলির কোন ত্রুটি থাকে না কারণ ভালো নেতা হিসেবে এ সব কিছুকে ও ছাপিয়ে গিয়েছিল৷ কীভাবে দলকে নেতৃত্ব দিতে হয় সৌরভ প্রত্যেকে তা দেখিয়ে দিয়েছিলেন৷

তিনি আরও বলেন, ‘বিরাটও অনেকটা সৌরভের মতো একই লাইনে। সৌরভ কখনই তার আবেগকে দেখায়নি৷ আমরা দু’বারই সৌরভকে তার আবেগ প্রদর্শন করতে দেখেছি। বিরাটও খুব আবেগপ্রবণ৷ তবে ওকে আগ্রাসন নিয়ন্ত্রণ করতে হবে৷’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.