পুণে: ব্যাটসম্যান হিসেবে হোক কিংবা অধিনায়ক। বিরাট কোহলি আর নজির যেন একে অপরের সমার্থক। গত অগাস্টে ক্যারিবিয়ান সফরে দেশের সবচেয়ে সফল টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন নিজেকে। আর বৃহস্পতিবার দেশের দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে ৫০তম টেস্টে ক্যাপ্টেন আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামার সঙ্গে সঙ্গে অচিরেই নজির গড়ে ফেললেন ‘দিল্লি বয়’। পিছনে ফেললেন প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে। সামনে এখন কেবল মহেন্দ্র সিং ধোনি।

বিশাখাপত্তনমে অধিনায়ক হিসেবে ৪৯তম টেস্টে নেতৃত্ব দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্পর্শ করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে। আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে টস করতে নামার সঙ্গে সঙ্গেই প্রাক্তন অধিনায়ককে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে ৫০তম ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়ার অনন্য মাইলস্টোন গড়ে ফেললেন বিরাট।

আর মাইলস্টোন ম্যাচে মাঠে নামার আগে বিরাট জানান, ‘এই পজিশনে নিজেকে দেখে ভীষণই ভাগ্যবান মনে হচ্ছে। দেশের হয়ে এত ম্যাচ খেলতে পেরে আমি কৃতজ্ঞ। এটা দারুণ একটা ল্যান্ডমার্ক। তবে যত বেশি সংখ্যক সম্ভব ম্যাচ জয়ের দিকেই এখন ফোকাস আমাদের। প্রয়োজনে সব ম্যাচই আমরা জিততে চাই। সংখ্যা এবং পরিসংখ্যানের বিশেষ গুরুত্ব আমার কাছে নেই। তবু এমন ছোট ছোট বিষয়গুলিকে যখন সম্মান জানানো হয়, ক্রিকেটার হিসেবে তখন তা অবশ্যই মানে রাখে।’

বর্তমানে কোহলির নেতৃত্বে বিশ্বের পয়লা নম্বর টেস্ট দল ভারত। অধিনায়ক হিসেবে ৪৯টি টেস্টে আপাতত ২৯টি জয় নিয়ে দেশের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন বিরাট। ড্র ১০টি ম্যাচে এবং কোহলির নেতৃত্বে ভারতীয় দল পরাজিত হয়েছে ১০টি ম্যাচে। উল্লেখ্য, ২০০৮-১৪ সময়কালে দেশের জার্সি গায়ে ৬০টি ম্যাচে নেতৃত্ব প্রদান করেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে যা এখনও সর্বকালীন রেকর্ড। তবে ম্যাচ জয়ের নিরিখে বিগত ক্যারিবিয়ান সফরে ধোনিকে পিছনে ফেলেছেন তাঁর যোগ্য উত্তরসূরী কোহলি। অধিনায়ক হিসেবে ৬০টি টেস্টে ২৭ টি ম্যাচ জয়ের নজির রয়েছে মাহির ঝুলিতে।

তবে বিশ্বক্রিকেটে টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ম্যাচ জয়ের নিরিখে তালিকায় সর্বপ্রথম নামটি অবশ্যই গ্রেম স্মিথের। বিশ্বের একমাত্র টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ১০০ বা তার বেশি ম্যাচে নেতৃত্বে প্রদানের পাশাপাশি স্মিথের ঝুলিতে রয়েছে ৫৩টি ম্যাচ জয়ের রেকর্ড। অধিনায়ক হিসেবে যথাক্রমে ৪৮টি ও ৪১টি ম্যাচ জিতে তালিকায় ঠিক তার পিছনে রয়েছেন দুই অজি কিংবদন্তি রিকি পন্টিং ও স্টিভ ওয়া।