বেঙ্গালুরু: মরশুম জুড়ে কখনও হতশ্রী ব্যাটিং, কখনও বা চোখে দেখা যায় না এমন বোলিং৷ সেই সঙ্গে টানা ছয় ম্যাচে হার৷ সবমিলিয়ে কোহলিদের কাছে এ এক দুঃস্বপ্নের আইপিএল মরশুম৷

এমন হতশ্রী পারফর্ম্যান্সের পরও কোহলিদের জন্য শেষদিন পর্যন্ত গলা ফাটাতে গ্যালারিতে হাজির হাজারও বেঙ্গালুরু সমর্থক৷ আইপিএলে নিজেদের অভিযান শেষের ‘দমশী’র দিনে সেই সব অগুণিত সমর্থকদের কাছেই ফ্র্যাঞ্চাইজির খারাপ পারফর্ম্যান্সের জন্য  ক্ষমা চাইলেন আরসিবি কাপ্তান বিরাট কোহলি৷

ফ্যানেদের কাছে এক ভিডিও বার্তায় মরশুম জুড়ে একনাগাড়ে হতশ্রী পারফর্ম্যান্স উপহার দিয়ে চলার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন কিং কোহলি৷ কাপ্তানের সঙ্গে ফ্র্যাঞ্চাইজির সিনিয়র এবিডিও ক্ষমা চেয়েছেন৷ টুইটার ভিডিওতে কোহলি বলেন, ‘ফ্যানেদের মুখে হাসি ফোটাতে না পারার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী৷ এরপরও ফ্যানেরা বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে তিন ঘন্টা অপেক্ষা করে মাঝরাতে ম্যাচের শেষ বল পর্যন্ত গ্যালারি ভরান৷ এই সমর্থন সত্যিই আমাদের সম্পদ৷ এই সমর্থনের জন্য সত্যিই সমর্থকদের ধন্যবাদ৷ পরের মরশুমে ভালো পারফর্ম্যান্স করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে বিদায় নিচ্ছি৷’

প্রসঙ্গত লিগে এবার আট নম্বরে রয়েছে আরসিবি৷ শুরুতে সিএসকে বিরুদ্ধে ৭০ রানে ব্যাটিং ভরাডুবি৷ সেই ম্যাচে কোহলিদের হতশ্রী পারফর্ম্যান্সের পর অনেকেই মনে করেছিল কোহলিরা এবার খোঁচা খাওয়া বাঘ!
যদিও কোনও সমীকরণেই জয়ের ছন্দে ফিরতে পারেননি আরসিবি৷ টুর্নামেন্টে টানা ছয় ম্যাচ হেরে বসে বিরাটরা৷ শেষ পর্যন্ত লিগে নিজেদের সপ্তম ম্যাচে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে জেতে আরসিবি৷

এক ম্যাচে জয়ের পর কোহলিদের আইপিএল যাত্রা ফের ধাক্কা খায়৷ কিংসদের বিরুদ্ধে ম্যাচ জয়ের পর ফের মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ হার৷ এরপর বোলিংয়ে ডেল স্টেইনকে ফিরিয়ে চমক দেয় কোহলি অ্যান্ড কোং৷ স্টেইনের দুরন্ত বোলিংয়ে ভর করে টানা দুই ম্যাচ জেতে ব্যাঙ্গালোর৷ পরে জয়ের হ্যাটট্রিক পূর্ণও করে কোহলিরা৷ চোটের কারণে স্টেইন দেশে ফিরলে আবারও সমস্যায় পরে ব্যাঙ্গালোর৷