মুম্বই: বিশ্বকাপের দামামা বেজে গিয়েছে৷ বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দলও বেছে নিয়েছে ভারত৷ বিরাট কোহলির নেতৃত্বে ভারত বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করছে ৫ জুন৷ আক্রমণাত্মক বিরাট ও শান্ত ধোনির যুগলবন্দিতে ভারতে এবার বিশ্বকাপ আসছে বলে মনে করেন ১৯৮৩ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত৷

দু’বার ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত৷ কপিল দেবের বিশ্বজয়ের ২৮ বছর পর ধোনির নেতৃত্বে ২০১১ বিশ্বকাপ জেতে ভারত৷ ’৮৩-র লর্ডসে ভারতকে প্রথম বিশ্বজয়ের স্বাদ এনে দিয়েছিলেন কপিল৷ সেই লর্ডসেই হবে ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল৷ বিশ্বকাপে ভারতীয় সম্পর্কে শ্রীকান্ত বলেন, ‘বিরাট কোহলির একজন দারুণ নেতা৷ সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দেয়৷ সবচেয়ে ভালো জিনিস ও দায়িত্ব নিতে পছন্দ করে৷ সুতরাং কিং কোহলির ভারতকে আবার বিশ্বকাপ দিতে পারে৷ কারণ সঙ্গে রয়েছে শান্ত ধোনি৷’

গত সোমবারই বিশ্বকাপের চূড়ান্ত ১৫ জনের দল ঘোষণা করেছেন ভারতীয় নির্বাচক৷ দল নিয়ে খুশি৷ প্রাক্তন নির্বাচক প্রধান৷ ২০১১ ধোনি বিশ্বকাপ জয়ী দলকে বেছে নিয়েছিলেন শ্রীকান্তের নির্বাচক কমিটি৷ এবার অবশ্য বিরাটের দল বেছে নিয়েছেন এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটি৷ বিরাটের নেতৃত্বে বিশ্বকাপে উইকেটের পিছনে দায়িত্ব সামলাবেন মহেন্দ্র সিং ধোনি৷

এই কম্বিনেশনকে দারুণ ব্যাখ্যা করে শ্রীকান্ত বলেন, ‘প্যাশন ও শান্ত কম্বিনেশনে ভারতের দারুণ সুযোগ রয়েছে৷ ভারতীয় দলের কোনও চাপ নেই৷ শুধু আত্মবিশ্বাস ধরে রাখতে হবে৷ যেমনটা কপিলের দলের ছিল৷ প্যাশন বলতে যা ছিল সচিন তেন্ডুলকরের৷ আর অ্যাগ্রেসন বলতে গেলে কোহলি এবং শান্ত ও দৃঢ় সংকল্প বলতে বোঝায় ধোনির৷’

বিরাটের ভারত বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে টাইটানিকের শহর সাউদাম্পটনে৷ ৫ জুন রোজ বোলে বিরাটদের প্রথম প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা৷ তবে বিশ্বকাপে নামার আগে দু’টি ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ খেলবে টিম কোহলি৷ ২৫ মে লন্ডনে নিউজিল্যান্ড ও ২৮ মে ক্যাডিফে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ খেলবে টিম ইন্ডিয়া৷