দুবাই: ওয়ান ডে ক্রিকেটে আইসিসি ব়্যাংকিংয়ে নিজেদের স্থান ধরে রাখলেন টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি ও ভাইস-ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা৷ বিরাট ও রোহিতের ব্যাটে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ ২-১ জিতেছে ভারত৷ দল হিসেবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের পরে অর্থাৎ দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত৷

রবিবার চিন্নাস্বামীতে অজিদের বিরুদ্ধে সিরিজ নির্ণায়ক ম্যাচে ১১৯ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন রোহিত৷ আর ৮৯ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ ও সিরিজ পকেটে পুরে নেন কোহলি৷ অজিদের বিরুদ্ধে ১৮৩ রান করে ম্যাচ অফ দ্য সিরিজ-এর পুরস্কার জিতে নেন বিরাট৷ সেই সঙ্গে এই সিরিজ থেকে দুই রেটিং পয়েন্ট যোগ করেন ভারত অধিনায়ক৷ আর সিরিজে ১৭১ রান করে তিন পয়েন্ট যোগ করেন রোহিত৷

৮৮৬ পয়েন্ট নিয়ে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় শীর্ষস্থানে রয়েছেন কোহলি৷ আর ৮৬৮ পয়েন্ট নিয়ে দু’ নম্বরে রয়েছে টিম ইন্ডিয়ায় তাঁর ডেপুটি রোহিত৷ বিরাট ও রোহিত ছাড়া প্রথম দশে নেই আর কোনও ভারতীয়৷ তিন নম্বরে রয়েছেন পাকিস্তানের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান বাবর আজম৷ তাঁর রেটিং পয়েন্ট ৮২৯৷ চার ও পাঁচ নম্বরে রয়েছেন যথাক্রমে প্রোটিয় ক্যাপ্টেন ফ্যাফ ডু’প্লেসি (৮১৫) ও কিউয়ি ব্যাটসম্যান রস টেলর (৮১০)৷

সদ্যসমাপ্ত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ১৭০ রান করে সাত ধাপ এগিয়ে ১৫ নম্বরে রয়েছেন শিখর ধাওয়ান৷ কাঁধের চোটের জন্য রবিবার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের শেষ ম্যাচ ব্যাট করতে পারেননি টিম ইন্ডিয়ার বাঁ-হাতি ওপেনার৷ তাঁর পরিবর্তে রোহিতের সঙ্গে ভারতীয় ইনিংস ওপেন করা লোকেশ রাহুল ২১ ধাপ এগিয়ে ৫০ নম্বরে রয়েছেন৷ ভারতের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের সিরিজে ২২৯ রান করা স্টিভ স্মিথ চার ধাপ এগিয়ে ২৩ নম্বরে রয়েছেন৷ অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার এক ধাপ এগিয়ে ছ’ নম্বরে রয়েছেন৷ আর অজি ক্যাপ্টেন অ্যারন ফিঞ্চ এক ধাপ এগিয়ে ১০ নম্বরে রয়েছেন৷

৭৬৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে বোলারদের মধ্যে শীর্ষস্থানে রয়েছেন ভারতের জসপ্রীত বুমরাহ৷ দুই ও তিন নম্বরে রয়েছেন যথাক্রমে ট্রেন্ট বোল্ট (৭৩৭) ও মুজিব-উর রহমান (৭০১)৷ আর অল-রাউন্ডারদের মধ্যে এক নম্বরে রয়েছেন ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস৷ ৩০৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন ইংল্যান্ড অল-রাউন্ডার৷ তবে অজি সিরিজ থেকে চার ধাপ এগিয়ে প্রথম দশে জায়গা করে নিয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার অল-রাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I