পাটনা: বিজয়া দশমীতে প্রতিমা নিরঞ্জন ঘিরে সংঘর্ষে পুলিশের লাঠি চার্জ ও অজ্ঞাত পরিচয়ের গুলিতে একজনের মৃত্যু হয়। সেই ঘটনার রেশ ধরে ফের জ্বলছে মুঙ্গের। যদিও প্রথম পর্যায়েই এখানে ভোট হয়েছে শান্তিতে।

কিন্তু ভোট মিটতেই জ্বলতে শুরু করেছে মুঙ্গের। প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মুঙ্গেরে ফের শুরু গোষ্ঠী সংঘর্ষ। দুটি পক্ষের হামলা চলছে। একাধিক দোকান, গাড়িতে আগুন ধরানো হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে মুঙ্গেরের পরিস্থিতি প্রায় প্রশাসনের হাতের বাইরে।

ইতিমধ্যেই সাসপেন্ড করা হয়েছে জেলা শাসক ও পুলিশ সুপারকে। হামলা হয়েছে পুলিশ কার্যালয়ে। ঘটনায় বিহার সরগরম। নির্বাচন চলাকালীন মুঙ্গেরের পরিস্থিতিতে চিন্তিত নির্বাচন কমিশন।

রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা নেই। মুঙ্গের তার প্রমাণ। এমনই অভিযোগ করেছে কংগ্রেস। সরকারে থাকা এনডিএ জোটকেই নিশানা করেছেন বিরোধী আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব।

নির্বাচনের ঠিক আগে দুর্গা বিসর্জনে পুলিশের লাঠি চালনার পরে তীব্র সমালোচনা হচ্ছিল। কিন্তু মুঙ্গেরের পরিস্থিতি ছিল শান্তিপূর্ণ। তবে ভোট হওয়ার পর থেকে নতুন করে সংঘর্ষ ছড়াতে থাকে। বিভিন্ন সরকারি দফতর ও আবাসন আক্রান্ত হয়েছে।

ডিআইজি মুঙ্গের মনু মহারাজের হুঙ্কার। যারা এই সংঘর্ষে জড়িত তাদের কাউকেই ছাড়া হবে না। সিংহম অফিসার হিসেবে সুপরিচিত আইপিএস আধিকারিক মনু মহারাজ। নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে কোবরা বাহিনির সঙ্গে জঙ্গলে সংঘর্ষ করেছেন। মাওবাদীরা প্রথম দফায় তেমন কিছু করতে পারেনি।

কিন্তু মুঙ্গেরের এই সংঘর্ষে বিতর্কে জড়িয়েছেন ডিআইজি মনু মহারাজ। তিনি জানান, কোনও রাজনৈতিক রং দেখব না। দ্রুত স্থিথাবস্থা ফিরে আসবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।