স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: বাঁধের মাটি কেটেই বাঁধের ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা মেরামতের অভিযোগ। ভরা বর্ষায় বড় বিপদের আশঙ্কায় কাজ আটকে দিলেন তিস্তা নদীর বালাপাড়া এলাকার বাসিন্দারা।

শুক্রবার সকালে জলপাইগুড়ি পাহাড়পুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বালা পাড়া তিস্তার বাঁধ সংস্কার করা হচ্ছিল। বাঁধের রেন কাট জায়গাগুলির পরিস্থিতি অত্যন্ত দুর্বল বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের৷

আরও পড়ুন: ইভটিজিংয়ের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আত্মঘাতী ছাত্রী

এই অবস্থায় বেশ কিছু এলাকায় বাঁধ ভেঙ্গে বিপদজনক হয়ে রয়েছে বলে দাবি করেন এলাকাবাসী৷ যাতায়াতের ক্ষেত্রেও বেশ কিছু দিন থেকে সমস্যা হচ্ছিল৷ শুক্রবার সকালে সেচ দফতরের ঠিকাদারেরা বাঁধের রেন কাট জায়গা গুলি সংস্কার করার জন্য কাজে হাত দেয়।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ বাঁধ সংস্কারের নামে বাঁধের অন্য জায়গায় শক্ত মাটি কেটে নরম করে কাজ করা হচ্ছে। এতে বাঁধের শক্তি অনেকটাই কমে যাবে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

আরও পড়ুন: দুই নাবালিকাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে ধৃত গ্রেফতার

এই ঘটনা এলাকায় বাসিন্দাদের চোখে পড়ে শুক্রবার সকালে৷ সাথে সাথে এলাকায় বাসিন্দারা এক জোট হয়ে সেচ দফতরের কাজ বন্ধ করে দেয়। ঠিকাদারকে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু করে তাঁরা।

তাঁদের দাবি বাঁধের কাজ নিম্ন মানের করা চলবে না। সঠিক ভাবে সঠিক কাজ করতে হবে। বাঁধেরই মাটি কেটে বাঁধ সংস্কার করা চলবে না। সেচ দফতরের আধিকারিকদের ঘটনাস্থলে আসার দাবি জানাতে থাকেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ গ্রামবাসী সুনীল দেবনাথ সহ অনান্যরা। বাধ্য হয়ে সেচ দফতর কাজ বন্ধ করে দেয়।

আরও পড়ুন: ইনি ভারতীয় ‘রিহানা’, দেখে নিন ছবিগুলি

এদিকে জলপাইগুড়ি সেচ দফতরের এস ডি ও শান্তুনু ধর বলেন, এই বর্ষার মধ্যে বাইরে থেকে মাটি নিয়ে এসে কাজ করা সম্ভব নয়। এই কারনে আমাদের ঠিকাদারকে ওই এলাকায় মাটি দিয়ে বাঁধ সংস্কারের কথা বলেছি। এলাকায় বাসিন্দারা কেন কাজ বন্ধ করল, তা খতিয়ে দেখা হবে৷ তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে গোটা বিষয়টি পরিদর্শনের কথাও জানান৷