নয়াদিল্লি: সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিরাট কোহলিদের পরবর্তী ব্যাটিং কোচ হচ্ছেন প্রাক্তন জাতীয় দলের ক্রিকেটার বিক্রম রাঠোর। পরবর্তী ব্যাটিং কোচ বেছে নিতে বৃহস্পতিবার তিনজনের চূড়ান্ত বাছাইতালিকা প্রকাশ করেছে এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় নির্বাচক কমিটি। তাতে ব্যাটিং কোচ হিসেবে সঞ্জয় বাঙ্গারের নাম দ্বিতীয়স্থানে থাকলেও তালিকার শীর্ষে রয়েছেন জাতীয় দলের হয়ে ৬টি টেস্ট ম্যাচ ও ৭টি ওয়ান-ডে খেলা রাঠোর। অর্থাৎ, বাঙ্গারকে টপকে রাঠোরের নতুন দায়িত্বভার গ্রহণ এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

ব্যাটিং কোচের দৌড়ে বাছাইতালিকার তৃতীয়স্থানে রয়েছেন প্রাক্তন ইংরেজ ক্রিকেটার মার্ক রামপ্রকাশ। এছাড়া কোহলিদের ব্যাটিং কোচ হতে চেয়ে আরেক প্রাক্তন ইংরেজ ব্যাটসম্যান জোনাথন ট্রট ও প্রাক্তন শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান থিলান সমরাবীরা আবেদন জানালেও দৌড়ে অনেকটাই পিছিয়ে গিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ে ব্যাটিং কোচের পাশাপাশি পাঁচ সদস্যের নির্বাচক কমিটি বোলিং এবং ফিল্ডিং কোচের চূড়ান্ত বাছাইতালিকাও প্রকাশ করেছে। সেক্ষেত্রে বোলিং কোচ হিসেবে ভরত অরুণ এবং ফিল্ডিং কোচ হিসেবে আর শ্রীধরের পদে পুনর্বহাল থাকার সম্ভাবনাই প্রবল।

আরও পড়ুন: সেনা’র ইউনিফর্ম খুলেই বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে ব্যস্ত ধোনি

তবে সবচেয়ে চর্চিত ব্যাটিং কোচের পদে বাঙ্গারের জুতোয় পা গলাতে চলা বিক্রম রাঠোরের আন্তর্জাতিক সার্কিটে তেমন সাফল্য নেই। কিন্তু প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ৩৩টি শতরানের মালিক রাঠোর ঘরোয়া ক্রিকেটে পঞ্জাবের হয়ে বড় নাম। ১৯৯৬ দেশের হয়ে মাত্র ১৩টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেললেও প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে ১১৪ ম্যাচে তাঁর রানসংখ্যা ১১,৪৭৩। এছাড়া ২০১২-১৬ সময়কালে উত্তরাঞ্চলের নির্বাচক হিসেবে জাতীয় নির্বাচক কমিটিতেও ছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কা বনাম নিউজিল্যান্ড: নির্ণায়ক টেস্টের প্রথমদিন ‘খলনায়ক’ বৃষ্টি

অতীতে জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমি ও অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ব্যাটিং কোচ হতে চেয়েও আবেদন করেছিলেন রাঠোর। বিসিসিআই সিইও রাহুল জোহরির কথায়, বিক্রম রাঠোরের অভিজ্ঞতা ভারতীয় দলের ব্যাটিং কোচ হওয়ার বিষয়ে তাদের আশ্বস্ত করেছে। তবে স্বার্থ-সংঘাতের দিকটি খতিয়ে দেখেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, রবি শাস্ত্রীকে হেড কোচের পদে পুনর্নিয়োগ করে বিসিসিআই এই মুহূর্তে সহকারী কোচ ও সাপোর্ট স্টাফেদের নিয়োগ প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। বোর্ডের সিইও রাহুল জোহরির কথায় সাপোর্ট স্টাফে বেশ কিছু নতুন মুখের অন্বেষণে ছিলেন তারা। সে কারণে জাতীয় দলের ফিজিও পদে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের প্রাক্তন ফিজিও নিতিন প্যাটেলকে নিয়োগ করতে চলেছেন তারা। আন্ড্রু লিপাসকে টপকে কোহলিদের নয়া ফিজিও হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে প্যাটেলই। যদিও ২০১১ বিশ্বজয়ী দলের সাপোর্ট স্টাফ হিসেবেও দলে ছিলেন তিনি। পাশাপাশি ইংল্যান্ডের লুক উডহাউসকে স্ট্রেংথ এবং কন্ডিশনিং কোচ হিসেবে নিয়োগ করতে চলেছে বোর্ড।

একইসঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়ে বিতর্কে জড়ানো সুনীল সুব্রহ্মনিয়ামকে সরিয়ে নয়া অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ম্যানেজার পদে আসীন হতে চলেছেন গিরিশ ডোংরে।