নাগপুর: জামথায় বিরাটদের অজি ‘বধ’ মনে করাল জো’বার্গে ধোনির পাক ‘বধ’-কে! বিজয় শঙ্কর যেন হয়ে উঠলেন যোগিন্দর শর্মা!

মঙ্গলবার জামথায় অজিদের বিরুদ্ধে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচ রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে শেষ ওভারে আনকোরা বিজয় শঙ্করের হাতে বল তুলে দেন ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি৷ অধিনায়কের আস্থার মর্যাদা দিয়ে ভারতকে জয় এনে দেন বিজয় শঙ্কর৷ শেষ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য দরকার ছিল ১১ রান৷ হাতে দু’ উইকেট৷ কিন্তু শঙ্করের বোলিংয়ে বিজয় উচ্ছ্বাস বিরাটদের৷ মাত্র ৩ রান খরচ করে অস্ট্রেলিয়ার শেষ দু’ উইকেট তুলে নিয়ে ভারতকে জেতান বিজয় শঙ্কর৷

ঠিক যেমনটা ঘটেছিল এক যুগ আগে৷ ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে জো’বার্গে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এমনই এক রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ জিতেছিল ভারত৷ শেষ ওভারে জয়ের জন্য পাকিস্তানের দরকার ছিল মাত্র ১৩ রান৷ সে সময় আনকোরা পেসার যোগিন্দর শর্মার হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন ক্যাপ্টেন মহেন্দ্র সিং ধোনি৷ অধিনায়কের আস্থার মর্যাদা দিয়ে ভারতকে ম্যাচ ও বিশ্বকাপ জিতিয়েছিলেন যোগিন্দর৷

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে স্নায়ুর চাপ ধরে রেখে দু’ক্ষেত্রেই সফল ভারতের এই দুই অনভিজ্ঞ মিডিয়াম পেসার৷ যদিও বিজয়ের থেকে অনেক বেশি স্নায়ুর চাপ ছিল যোগিন্দরের৷ কারণ সেটা ছিল বিশ্বকাপ ফাইনাল৷ আর প্রতিপক্ষ পাকিস্তান৷ তবে এদিন বিজয়ের উপর চাপ অন্য কারণে৷ কারণ শেষ ওভারের আগে এদিন মাত্র এক ওভার বল করেছিলেন বিজয়৷ খরচ করেছিলেন ১৩ রান৷ সুতরাং শেষ ওভারে ১১ রান মূলধন করে দলকে জেতানো যথেষ্ট চ্যালেঞ্জ ছিল বিজয়ের সামনে৷

তবে এমনই এক চ্যালেঞ্জ নিতে চেয়েছিলেন বিজয়৷ মাত্র দু’ মাস আগে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানো তামিল অল-রাউন্ডার ম্যাচের পর বলেন, ‘আমি এই সুযোগটার জন্য অপেক্ষা করছিলাম৷ ৪৩ ওভারের পরই আমাকে বলা হয়েছিল শেষ ওভার আমাকে করতে হতে পারে৷ তখন থেকেই মানসিক প্রস্তুতি নিয়েছিলাম৷ সত্যি কথা বলতে আমার উপর কোনও চাপ ছিল না৷ কারণ জানতাম ১০ রানে বেঁধে রাখা কঠিন, যদি না শেষ দু’টো উইকেট তুলতে পারি৷’

যোগিন্দরের মতো চ্যালেঞ্জ নিয়ে করে দেখালেন৷ মাত্র তিন দু’ রান খরচ করে তুলে নেন অস্ট্রেলিয়ার শেষ দু’টি উইকেট৷ ২৫০ রান তাড়া করে ২৪২ রানে গুটিয়ে যায় বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া৷ তবে শেষ ওভারে স্বপ্নের বোলিংয়ের জন্য সতীর্থ বুমরাহকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন বিজয়৷ তিনি বলেন, ‘বোলিং করতে যাওয়ার আগে বুমরাহ আমাকে বলে রিভার্স সুইং হচ্ছে, শুধু ঠিক জায়গা বল রাখতে৷ এই পিচে বল হিট করা সহজ নয়৷ দলের সেরা বোলার এসে উপদেশ দেওয়ায় আমি সেটাই করি৷’

বিজয় উচ্ছ্বাসের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন…