পূজা মণ্ডল, কলকাতা: অবশেষে মূর্তি বসল বিদ্যাসাগর কলেজে। তর্ক-বিতর্কের চাপানউতোর সরিয়ে মঙ্গলবার (১১ জুন) শান্তিপূর্ণভাবেই বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচন পর্ব চলল বিদ্যাসাগর কলেজে।

তবে ব্রোঞ্জের নয়, মূর্তি বসানো হল ফাইবারের নির্মিত। বিদ্যাসাগর কলেজে বসানো হল ফাইবারের তৈরি বিদ্যাসাগরের মূর্তি। একটি পূর্ণাবয়ব এবং অন্যটি আবক্ষ।

কথা ছিল, ব্রোঞ্জের তৈরি মূর্তি বসবে বিদ্যাসাগর কলেজে। কিন্তু এদিনের অনুষ্ঠান পর্ব শুরু হতে জানা গেল ফাইবারের মূর্তি বসানো হতে চলেছে বিদ্যাসাগর কলেজ প্রাঙ্গনে। এদিনের কর্মসূচি অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম পৌঁছন হেয়ার স্কুলে। মুখ্যমন্ত্রীর আগমঙ্কে কেন্দ্র করে রাখা হয় আঁটসাঁট নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

হেয়ার স্কুল থেকে বিদ্যাসাগর কলেজ পর্যন্ত রাস্তা মুড়ে ফেলা হয় সুরক্ষার চাদরে। হেয়ার স্কুলে এদিনের অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব শুরু হতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন আরও চারটি মূর্তি বসানো হবে। তবে শুধু বিদ্যাসাগর মহাশয় নন, আরও চার মনীষীর মূর্তি বসানো হবে। বসাবে রাজ্য সরকার। এই চার মূর্তির মধ্যে থাকবেন রবীন্দ্রনাথ, কাজী নজরুল ইসলামের মত মানুষদের অবয়বও।

হেয়ার স্কুলের অনুষ্ঠান পর্ব মিটিয়ে পদযাত্রা করে মুখ্যমন্ত্রী পায়ে হেঁটে রওনা দেন বিদ্যাসাগর কলেজের উদ্দেশ্যে। কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি এই পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে। পদযাত্রার পুরভাগে ছিল বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তি।

এই মূর্তি অনুসরণ করেই মুখ্যমন্ত্রী সহ মন্ত্রীবর্গ পৌঁছন বিদ্যাসাগর কলেজ প্রাঙ্গনে। সেখানে কলেজের ঠিক সামনেই বাঁ দিকে বসানো হয়েছে বিদ্যাসাগরের পূর্ণাবয়ব মূর্তি। সেই মূর্তির এদিন উন্মোচন করেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে ঘোষণা মত ব্রোঞ্জ নয়, ফাইবারের তৈরি বিদ্যাসাগরের মূর্তিরই এদিন উন্মোচন করেন মুখ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠান পর্ব শেষে বিদ্যাসাগর কলেজের অধ্যক্ষ গৌতম কুণ্ডু সংবাদ মাধ্যমের সামনে জানান, ব্রোঞ্জের নির্মিত বিদ্যাগাররের মূর্তি এদিন উন্মোচিত হয় নি। তবে পরে হবে। চার জন মনিষীর মূর্তি বসানো হবে। সেগুলি হবে ব্রোঞ্জের। এই দিনের উন্মোচিত দুটি মূর্তি কলেজেই থাকবে।

কলেজের বাইরে রাখা বিদ্যাসাগরের পূর্ণাবয়ব মূর্তিটির উপর ছাউনির ব্যবস্থা করা হবে। সেই সঙ্গেই তিনি জানান, ভিতরে থাকা বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তিটির জন্য কাঁচের বাক্সের ব্যবস্থা করা হবে। সেই বাক্সের মধ্যেই রাখা হবে আবক্ষ মূর্তিটি। তিনি আরও জানান, ১৪ মে ভেঙে যাওয়া মূর্তিটিও তাঁরা সংরক্ষণ করে রেখেছেন।