কলকাতা: গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রকাশ্যে এসেছিল নারদের স্টিং অপারেশন। এবার ২০২১-এর আগে ফের আরও একটা স্টিং অপারেশনের ভিডিও। এবার ভিডিও সামনে আনল বঙ্গ বিজেপি।

বিজেপির দাবি, রাজ্যের বেশ কয়েক জন মন্ত্রী-বিধায়কের টাকা নেওয়ার ছবি ধরা পড়েছে গোপন ক্যামেরায়। কিছুদিন আগেই এই দাবি করেছিল একটি সংবাদমাধ্যম। সেই স্টিং অপারেশনের ভিডিওকে হাতিয়ার করে এবার কোমর বেঁধে ময়দানে নামল বিজেপি। কৈলাস বিজয়বর্গীয়, দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায় একসঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই ভিডিও প্রকাশ করেছেন।

প্রজেক্টরে দেখিয়েছেন কীভাবে একাধিক মন্ত্রী ও বিধায়ক টাকা নিচ্ছে। যদিও টাকা নেওয়ার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী তাপস রায়।

বুধবার সাংবাদিক বৈঠক করেন কৈলাস বিজয়বর্গী। সঙ্গে ছিলেন সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়। বৈঠকে কৈলাস জানান, স্টিং অপারেশন করিয়েছে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল। সেই চ্যানেলে ভিডিওগুলি সম্প্রচারও হয়েছে। বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়েও পড়ে মন্ত্রী-বিধায়কদের টাকা নেওয়ার ভিডিও। দেখা যাচ্ছে রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ, তাপস রায়, অরূপ রায়, উজ্জ্বল বিশ্বাস, স্বপন দেবনাথ, মলয় ঘটককে। বিধায়কদের মধ্যে ভিডিওতে দেখানো হয়েছে বজবজের বিধায়ক অশোক দেব, খানাকুলের ইকবাল আহমেদ এবং জোড়াসাঁকোর স্মিতা বক্সী।

তারপর মন্ত্রীদের কাছে গিয়ে নারদ স্টিং অপারেশনের কায়দায় নানা রকম ‘প্রজেক্ট’-এর কথা বলা হয়েছে। এর পর ওই সংস্থার প্রতিনিধিরা বলেছেন, ”আপনাদের আশীর্বাদ চাই।” এই কথা বলে টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এ দিন প্রথমে ‘ব্রোকার’দের সঙ্গে ওই চ্যানেলের কর্মীদের কথোপকথনের ভিডিও দেখান বিজেপি নেতৃত্ব। তার পর মন্ত্রী-বিধায়কদের টাকা নেওয়ার ভিডিও দেখানো হয়েছে।

বিজেপির পক্ষ থেকে একটি অডিও ক্লিপ শোনানো হয়েছে। তাতে শোনা গিয়েছে, তাপস রায় অন্য এক জনকে টাকা দেওয়ার কথা বলছেন। ওই ব্যক্তির কাছ থেকে তিনি পরে টাকা নিয়ে নেবেন বলেও শোনা গিয়েছে। রাজ্যের অন্য এক মন্ত্রী মলয় ঘটকও টাকার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন।