স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: রান্নায় নুন কম হওয়ার অপরাধে স্ত্রীকে প্রকাশ্যে বেধড়ক মার স্বামীর। শুধু মারধরই নয় কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে মারার হুমকিরও অভিযোগ রয়েছে গুণধর স্বামীর বিরুদ্ধে। গোটা ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করা হয়েছে৷ সেটি এখন সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল৷ ঘটনাটি দক্ষিণ দিনাজপুরের বংশীহারী থানার বুনিয়াদপুর শহরের শিবপুরের৷ অভিযুক্ত স্বামীর নাম জীবন হালদার। পেশায় মাছ ব্যবসায়ী৷

প্রতিদিনই মদ খেয়ে এসে নানা অছিলায় বউকে মারধরের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। আগে তিনটে বিয়ে করার নজির রয়েছে পেশায় মাছ বিক্রেতা জীবন হালদারের। প্রথম বউ মারা গেলেও দ্বিতীয় ও তৃতীয় বউ দুইজনে মারধর সহ্য করতে না পেরে সংসার ছেরে পালিয়ে গিয়েছে। বছর দুয়েক আগে বুনিয়াদপুর পুরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা পম্পা হাজরাকে বিয়ে করে জীবন। তাদের কোনও সন্তান নেই।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনা প্রথমবার নয়৷ এর আগেও বহুবার পম্পাকে মারধর করেছে জীবন৷ আগে পম্পাকে হাত পা বেঁধে বাড়িতেই মারধর করত অভিযুক্ত স্বামী৷ কিন্তু এইবারের ঘটনাটি ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন৷ সোমবার গভীর রাতে বংশীহারী থানার পুলিশ ও বুনিয়াদপুর পুরসভার কাউন্সিলাররা ঘটনাস্থলে যান৷ বিষয়টি জানতে পেরে গা ঢাকা দেয় অভিযুক্ত জীবন হালদার৷ এখনও পর্যন্ত থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি৷

এই বিষয়ে দক্ষিণ দিনাজপুরের পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠি জানিয়েছেন, শিবপুরের ঘটনাটি নজরে আসা মাত্রই পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। অভিযুক্ত স্বামী জীবন সরকার পলাতক। ঘটনায় আক্রান্ত স্ত্রী তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিশের নিকট কোনোরূপ অভিযোগ জানাতে নারাজ।