নাগপুর: ঘরের মাঠে সৌরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে রঞ্জি ফাইনালের প্রথম দিনে চাপে বিদর্ভ৷ টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বিদর্ভ ৭ উইকেটে ২০০ রান তুলে প্রথম দিনের খেলা শেষ করেছে৷

বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসেসিয়শনের বাইশগজ বরাবরই অল্প-বিস্তর বোলারদের সাহায্য করে৷ তবে হাতের তালুর মতো চেনা জামথায় রঞ্জি ফাইনাল খেলতে নামা বিদর্ভ সৌরাষ্ট্র বোলারদের মোকাবিলায় অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কারণ দেখেনি৷ তাই টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করাই শ্রেয় মনে করেন ফৈজ ফজল৷

আরও পড়ুন: 10 years challenge-এর রেকর্ড হারালেন ধোনি

তবে বিদর্ভ অধিনায়কের এই সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক, তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয় দিনের শেষে৷ শুরু থেকেই নিয়মিত অন্তরে উইকেট হারাতে থাকে বিদর্ভ৷ দুই ওপেনার ফজল ও সঞ্জয় আউট হন যথাক্রমে ১৬ ও ২ রান করে৷ বড় রানের ইঙ্গিত দিয়েও ক্রিজ ছাড়েন ওয়াসিম জাফর (২৩), মোহিত কালে (৩৫), গণেশ সতীশ (৩২), অক্ষয় ওয়াদকররা (৪৫)৷ খাতা খুলতে পারেননি আদিত্য সারওয়াটে৷

ওয়াখারের সঙ্গে জুটি বেঁধে দিনর শেষবেলাটুকু কোনও রকমে কাটিয়ে দেন কারনেওয়ার৷ ওয়াখারে ১১ বল খেলেও এখনও কোনও রান যোগ করতে পারেননি দলের ইনিংসে৷ কারনেওয়ার অপরাজিত রয়েছেন ব্যক্তিগত ৩১ রানে৷

আরও পড়ুন: হেরে ভারত অধিনায়কের মুখে সরকারি উপেক্ষার গল্প

সৌরাষ্ট্রের সব বোলাররাই পালা করে উইকেট তোলেন৷ জয়দেব উনাদকাট ২৬ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট দখল করেন৷ একটি করে উইকেট নিয়েছেন সাকারিয়া, প্রেরক মানকড়, ধর্মেন্দ্রসিং জাদেজা ও কমলেশ মাকভনা৷ আপাতত প্রথম দিনের শেষে ম্যাচের রাশ চেতেশ্বর পূজারাদের হাতেই রয়েছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।