স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: রাজ্যের বিজয় মিছিলের উপর নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাঁকুড়ার জঙ্গল মহলেও বিজয় মিছিল করল বিজেপি। শুক্রবার বিজেপি নেতা শ্যামল সরকারের নেতৃত্বে রানীবাঁধে বিজয় মিছিলে অংশ নেন হাজারো দলীয় কর্মী সমর্থক।

আরও পড়ুন- এদের নিখুঁত অঙ্কেই বারাকপুরে ফুটেছে পদ্ম

এদিন রানীবাঁধ কর্ম তীর্থ থেকে শুরু হয়ে বিরষা বাজার হয়ে তালগোড়াতে মিছিল শেষ হয়। দলীয় পতাকা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিশালাকার ছবি, দেদার গেরুয়া আবির ও জয় শ্রী রাম ধ্বনিতে মুখোরিত হল রানীবাঁধের আকাশ বাতাস। এবিষয়ে পুলিশ বা বিজেপির নেতৃত্বের তরফে কোন মন্তব্য করা হয়নি।

প্রসঙ্গত রাজ্যে আর কোনও বিজয় মিছিল হবে না। নিমতায় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী নির্মল কুণ্ডু খুনের ঘটনার পর তাঁর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিবারের সঙ্গে দেখা করে বেরিয়ে এসে এমনটাই নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন- দলের স্বার্থে দলীয় পুরপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা বনগাঁর তৃণমূল কাউন্সিলরদের

এই বিষয়ে পুলিশকেও বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যে নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। আর তাঁর এই হুশিয়ারির ২৪ ঘণ্টাও কাটল না। রাজ্যের একাধিক জায়গায় বিজয় মিছিল বার করল বঙ্গ বিজেপি শিবির। কোথায় দেখা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা দিলীপ ঘোষকে। আবার কোনও মিছিলে দেখা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরীকে।

আর তার পরেও শুক্রবার জঙ্গলমহলের সঙ্গে বিজেপির বিজয় মিছিলের সাক্ষী থাকল ব্যান্ডল। ব্যান্ডল নলডাঙ্গা অঞ্চল লাগোয়া জিটি রোডে হটাৎই শুরু হয় বিজেপি উল্লাস মিছিল। যে মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন বিজেপির ওবিসি মোর্চার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ সাউ, সহ সভাপতি রাজীব নাগ, মগরা মন্ডলের যুব সভাপতি প্রভাত গুপ্তা ও রাজ্য কমিটির সদস্য দেবাশিষ সেন সহ বিজেপির একাধিক শীর্ষ নেতৃত্ব। প্রায় ২০০ কর্মী এই মিছিল করেন।

আরও পড়ুন- ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগানকে প্রশাসনিক মর্যাদার দাবিতে মুর্শিদাবাদে মিছিল