প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: ক্রমশ শক্তি বৃদ্ধি করে ধেয়ে আসছে সাইক্লোন Vayu. ইতিমধ্যেই কীভাবে এই সাইক্লোনের ভয়ঙ্কর থাবা থেকে জনসাদারণকে রক্ষা করা যায় তাই নিয়ে দফায় দফায় চলেছে বৈঠক৷ নৌসেনা থেকে উদ্ধারকারী দল প্রস্তুত সকলেই৷ তবে ফণীর কথা মাথায় রেখেই খালি করা হচ্ছে গুজরাত৷ মৌসম ভবনের খবরেই আগাম সতর্কতা অবলম্বনে ওডিশাকে অনেকটাই বিপদের হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভবপর হয়েছিল৷ আর এবার এই Vayu-র হাত থেকে গুজরাত এবং মহারাষ্ট্রকে রক্ষা করতে প্রায় সবধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে৷

ন্যাশনাল ম্যানেজমেন্ট রিলিফ ফোর্স প্রায় ৫২ টি দল প্রস্তুত রেকেছে৷ প্রতিটি দলে ৪৫ জন করে উদ্ধারকারী রয়েছে৷ স্ট্যান্ড বাই রয়েছে ভারতীয় সেনাও৷ পাশাপাশি বায়ুসেনা এবং নৌসেনা এয়ারক্র্যাফ্ট এবং যুদ্ধজাহাজ নিয়েও প্রস্তুত৷ গুজরাতের ১০ জেলায় ইতিমধ্যেই সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে৷

এদিকে বিমানযাত্রীরা যাতে কোনওরকম বিপদে না পড়ে যান তার জন্য বিমান পরিষেবা বেস কয়েকটি বিমানবন্দরে বন্ধ রাখা হয়েছে৷ এই তালিকায় রয়েছে পোরবন্দর, দিউ, ভাবনগর, কেশোড় এবং কান্ডলা বিমানবন্দরগুলি৷ আগামিকাল মধ্যরাত্রি পর্যন্ত এইসব বিমানবন্দরে পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

প্রসঙ্গত, আগামিকাল অর্থাৎ ১৩ জুন ঘন্টায় ১৪০-১৫০ কিলোমিটার বেগেই দিউ এলাকাসহ আশেপাশে আছড়ে পড়বে এই সাইক্লোন৷ লাক্ষাদ্বীপের কাছে অবস্থান করছে সাইক্লোন Vayu৷ বৃহস্পতিবার সকালেই এর গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১৬৫ কিমি৷ বুধবার থেকেই ঝোড়ো হাওয়ার দাপট শুরু হয়েছে৷ সঙ্গে ভারি বৃষ্টি৷ মৌসম ভবন জানাচ্ছে গুজরাতে বৃহস্পতি ও শুক্রবার ১১০ কিমি বেগে ঝড় বইবে, সঙ্গে থাকবে বৃষ্টি৷ সতর্ক করা হয়েছে উপকূলীয় এলাকা সৌরাষ্ট্র ও কচ্ছকে৷

এদিন সাইক্লোন Vayu সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করে ট্যুইট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে তৈরি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি৷ এছাড়াও কেন্দ্র, গুজরাতের সঙ্গে সমন্বয় বজায় রেখে কাজ করে চলেছে বলেও খবর৷ সবাইকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে৷

ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে৷ উপকূলীয় এলাকা থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে পুনর্বাসন কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে গুজরাতে৷ এদিকে, কোঙ্কন উপকূলের পালগাহার, থানে, মুম্বই, রায়গড়, রত্নগিরি, সিন্ধুদুর্গের মতো কোস্টাল এলাকা পর্যটকদের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে৷ দুদিন এই নিষেধাজ্ঞা থাকবে বলে জানানো হয়েছে৷ ১২ ও ১৩ তারিখ এই উপকূল এলাকাগুলির সৈকত বন্ধ রাখা হবে বলে খবর৷