কারাকাস:  ভেনিজুয়েলার একটি কারাগারে গোষ্ঠী সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৯ বন্দি নিহত হয়েছে। এছাড়া, সংঘর্ষে ১৯ জন পুলিশ আহত হয়েছেন।

ভেনিজুয়েলার পোর্টুগেসা রাজ্যের অ্যাকারিগুয়া শহরে একটি থানার কারাগারে পুলিশের বিশেষ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ২৯ জন কারাবন্দি নিহত হয় বলে পোর্টুগেসার জননিরাপত্তা বিষয়ক সচিব ওসকার ভ্যালেরো জানিয়েছেন। কারাবন্দিরা পুলিশের ওপর গুলিবর্ষণের পাশাপাশি তিনটি গ্রেনেড বিস্ফোরণ ঘটালে ১৯ পুলিশ আহত হন বলে জানা গিয়েছে। কারাবন্দিদের মানবাধিকার বিষয়ক উনা ভেনতানা নামে একটি এনজিও কার্লোস নিয়েতো প্রাথমিকভাবে নিহত বন্দিদের সংখ্যা ২৫ জন বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, অ্যাকারিগুয়ার জেলখানায় কয়েক জন ‘ভিজিটর’কে পণবন্দি করে সেখানকার বন্দিরা। দেশের পুলিশ আজ সকালে তাদের উদ্ধারে গেলে বন্দিদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। তিনি আরও বলেন, বন্দিদের কাছে অস্ত্র ছিল। তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এছাড়া তারা দু’টি গ্রেনেডেরও বিস্ফোরণ ঘটায়। এদিকে ভেনিজুয়েলার কারা বিষয়ক দফতর এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করে নি। দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, থানার অধীনে কারাগারগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণের অধীনে নয়।

কার্লোস নিয়েতো জানান, বন্দিরা খাবার এবং অন্য কারাগারে স্থানান্তরের দাবির পাশাপাশি পুলিশের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করছিলেন। উল্লেখ্য, ২০১৭ সাল থেকে পৃথক তিনটি দাঙ্গায় ভেনিজুয়েলায় ১৩০ জন বন্দির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। দেশে অন্তত ৩০টি কারাগার ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। এসব জেলে বন্দির সংখ্যা আনুপাতিক হারে বেশি। এছাড়া মাদক ও অস্ত্র সরবরাহ হয়ে থাকে নিয়মিত।