জয়পুর: লক্ষ্যটা কঠিন ছিল না৷ নিয়ন্ত্রিত ব্যাটিংয়ে অনায়াসে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় মিতালি রাজের ভেলোসিটি৷ ওমেনসটি-২০ চ্যালেঞ্জের দ্বিতীয় ম্যাচে স্মৃতি মন্ধনার ট্রেলব্লেজার্সকে ৩ উইকেটে পরাজিত করে ভেলোসিটি৷

টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে ট্রেলব্লেজার্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১১২ রান তোলে৷ হারলিন দেওয়ল ও সুজি বেটস ছাড়া বলার মতো রান করতে পারেননি আর কেউই৷ প্রথম ম্যাচে ৯০ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেললেও এই ম্যাচে ব্যর্থ হন মন্ধনা৷ একতা বিস্ট ও অ্যামেলিয়া কের দুরন্ত বোলিং করেন৷

আরও পড়ুন: অশ্বিনের পরামর্শ নিয়েই বিশ্বকাপে আফগান স্পিনার

পালটা ব্যাট করতে নেমে ভেলোসিটি একসময় ১৬.৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১১১ রান তুলে ফেলে৷ অর্থাৎ জয়ের জন্য মাত্র ২ রান দরকার ছিল তাদের৷ এই অবস্থায় ৭ বলের ব্যবধান ৫টি উইকেট হারায় মিতালির দল৷ শেষমেশ ১৮ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১১৩ রান তুলে নেয় ভেলোসিটি৷

ট্রেলব্লেজার্সের হয়ে মন্ধনা ২টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০ বলে ১০ রান করে আউট হন৷ মন্ধনাকে ফিরিয়ে দেন শিখা পান্ডে৷ সুজি ২৬ রান করে আউট হন একতা বিস্টের বলে৷ ২২ বলের ইনিংসে তিনি ২টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন৷ স্টেফানি টেলর ৫ রান করে সুশ্রী প্রধানের বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে বসেন৷ দীপ্তি শর্মা ১৬ বলে ১৬ রান করে অ্যামেলিয়া কেরের শিকার হন৷

আরও পড়ুন: তামিম-সৌম্যর ব্যাটে ধরাশায়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ

হার্লিন দেওয়ল দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৩ রান করে কেরের দ্বিতীয় শিকার হন৷ ৪০ বলের ইনিংসে তিনি ৫টি চার মারেন৷ ফুলমালি ২ রান করে বিস্টের বলে সাজঘরে ফেরেন৷ হেমলতা ১ ও সেলমান ৮ রান করে অপরাজিত থাকেন৷ একতা ও কের দু’টি করে উইকেট নেন৷ একটি করে উইকেট পেয়েছেন শিখা পান্ডে ও সুশ্রী৷ জয়ের জন্য ভেলোসিটির প্রয়োজন ১১৩ রান৷

ভেলোসিটির হয়ে ড্যানিয়েলে ওয়াট ৪৬ রান করে আউট হন৷ ৩৫ বলের ইনিংসে ৫টি চার ও ২টি ছক্কা মারেন তিনি৷ সেফালি বর্মা ৫টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৩১ বলে ৩৪ রান করেন৷ মিতালি সাজঘরে ফেরেন ১৭ রান করে৷ বেদা কৃষ্ণমূর্তী, সুষমা বর্মা, শিখা পান্ডে ও অ্যামেলিয়া কের খাতা খোলার আগেই আউট হন৷ সুশ্রী প্রধান ২ রান নিয়ে দলকে জয় এনে দেন৷ দীপ্তি শর্মা ১৪ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নেন৷ একটি করে উইকেট পেয়েছেন রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় ও হারলিন দেওয়ল৷