মুম্বই : বরুণ ধাওয়ানের কুকীর্তির কথা ফাঁস করে দিলেন কৃতি সানন। যা দেখে চোখে জল সিদ্ধান্ত চতুর্বেদী শশাঙ্ক খৈতান ডাব্বু রত্নানির। তবে চোখে জল এলো হাসতে হাসতে। কারণ এমন কান্ড করলো বরুণ ধাওয়ান একটি নিছক শিশুর সঙ্গে।

বড় হয়ে যাওয়ার পরেও যে জিনিসের জন্য আশা করে বসে থাকা সেটা যদি অন্য কারোর কাছে চলে যায় তবে আমাদের মন থেকে মুখ পুরোটারই অবস্থা একদম বদলে যায়। আর সে রকমই কোন কাঙ্খিত জিনিস যদি নিজের থেকে অন্য কারোর কাছে চলে যায় তবে একজন বাচ্চার মনের কি অবস্থা হয় বুঝতেই পারছেন। বরুণ ধাওয়ান একজন শিশুর হাতে জল ঢেলে দিল। ব্যাস এই শিশুটির হাসিখুশি মুখ হঠাৎ করে পুরো কালো মেঘের ছায়া নিয়ে নিল। কিন্তু বরুন তাতে একটুও না হেসে খুব সিরিয়াসলি ব্যাপারটা করেই ফেলল।

এই ভিডিও ক্যাপচার করেছেন বরুণ ধাওয়ানের দ্বিতীয়বারের জন্য হওয়া অভিনেত্রী কৃতি সানন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বরুণ ধাওয়ান কেক কাটছেন আর তার পাশে এক ভদ্রলোক দাঁড়িয়ে আছেন একটি শিশুকে কোলে করে। বরুণ কেক কেটে বাচ্চাটার দিকে যখন এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তখন বাচ্চাটির মুখে একটি বড়সড় হাসি এবং সে হাঁ করে আছে কেকটার জন্য, অথচ এই কেকটা বরুণ তাকে না দিয়ে দিয়ে দিল তাকে কোলে করে যে ভদ্রলোক দাঁড়িয়ে আছেন তার মুখে। আর তখন সেই বাচ্চাদের মুখের এক্সপ্রেশন বদলে যাওয়া খুব মিষ্টি করে তুলে ধরেছেন কৃতি এই ভিডিওতে।

এই ভিডিও শেয়ার করে একটি জীবনদর্শনের কোথাও মজা করে উল্লেখ করেছেন কৃতি। তিনি লিখেছেন, ‘এরকম পরিস্থিতির ভেতর দিয়ে আমি আপনি সবাই গেছি তাইনা? তবে এখনো বিশ্বাস করতে পারছিনা বরুণ তুমি সত্যিই এই শিশুর সাথে এরকম কিছু করেছ । আর সঙ্গে হাসির ইমোজিও যোগ করে দিয়েছেন কৃতি।
এই ভিডিও দেখে দারুণ মজা পেয়ে তাতে নানা রকম কমেন্ট করে নিজেদের অভিব্যক্তি জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.