মুম্বই: বিয়ে সেরে ফেললেন বরুণ ধাওয়ান। দীর্ঘদিনের প্রেমিকা নাতাশা দালালকে বিয়ে করলেন বলি অভিনেতা প্রকাশ্যে এল সেই ছবি।

মহারাষ্ট্রের আলিবাগে একটি বিচ রিসর্টে বরুণ ও নাতাশার বিয়ে হয়ে গেল। সন্ধে ৬টা থেকে শুরু হয় বিয়ের অনুষ্ঠান। দুই পরিবারেরই ঘনিষ্ঠ আত্মীয়রা উপস্থিত ছিলেন বিয়েতে। ছিলেন করণ জোহর, মণীশ মালহোত্রার মত ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা।

হিন্দু রীতি মেনেই বিয়ে হয়েছে বরুণ ও নাতাশার। ছবিতে বরুণ-নাতাশার পিছনে দেখা যাচ্ছে ডেভিড ধাওয়ানকে। জানা গিয়েছে, তাঁরা মধুচন্দ্রিমায় তুরস্কে যাবেন।

বরুণ ও নাতাশার পরিবারের লোকজন বিয়ের প্রস্তুতির জন্য শুক্রবারই আলিবাগের রিসর্টে পৌঁছে যান। প্রথমে হয় ‘হলদি’ ও ‘মেহেন্দি’ অনুষ্ঠান। এরপর গতকাল সেখানে পৌঁছন বরুণ। গতকাল হয় ‘সঙ্গীত’ অনুষ্ঠান। এরপর আজ হল বিয়ে।

অনেকদিন ধরেই বরুণ ও নাতাশাকে একসঙ্গে দেখা যাচ্ছিল। একটি চ্যাট শো-তে বরুণ বলেছিলেন, ‘আমি যখন ক্লাস সিক্সে পড়তাম, তখন প্রথম নাতাশাকে দেখি। আমাদের সম্পর্ক অবশ্য অনেক পড়ে শুরু হয়। আমরা ক্লাস ইলেভেন পর্যন্ত শুধু বন্ধুই ছিলাম। তবে ওকে প্রথমদিন দেখার কথা এখনও মনে আছে। আমরা তখন বাস্কেটবল কোর্টে ছিলাম। খেলার মাঝে আমাদের খাবার খেতে দেওয়া হত। নাতাশা হেঁটে আসছিল। তখনই আমি ওকে দেখি।’

বরুণ আরও জানিয়েছেন, ‘নাতাশাকে দেখার পরেই আমি ওকে ভালবেসে ফেলি। কিন্তু আমি ওকে সে কথা জানানোর পর তিন-চারবার প্রত্যাখ্যাত হতে হয়। তবে আমি হাল ছাড়িনি।’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।