রায়পুর: বহুদিন ধরেই তাকে খুঁজছিল যৌথবাহিনী৷ ছত্তিশগড়ে একাধিক মাওবাদী নাশকতা মূলক কাজের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে৷ বৃহস্পতিবার যৌথবাহিনীর গুলিতে নিকেশ হল ভঞ্জন বুধু৷ স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভঞ্জনের মাথার দাম ধার্য করা হয়েছিল এক লক্ষ টাকা৷

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ছত্তিশগড়ের সুকমার জঙ্গলে তল্লাশি চালাচ্ছিল ডিস্ট্রিক্ট রিজার্ভ গার্ড বা ডিআরজি৷ তাদেরই গুলিতে নিকেশ হয়েছে বুধু৷ পরে তাকে শনাক্তকরণ করা হয়৷ এই ভঞ্জন বুধু নিলামাডগু আরপিসি (রেভিলিউশনারি পিপলস কমিটি)-এর প্রধান ছিল বলে সূত্রের খবর৷ এছাড়াও জন মিলিশিয়া কমাণ্ডার ছিল সে৷ সংবাদসংস্থা এএনআই পরে ট্যুইট করে এই সংঘর্ষে মাওবাদী নিহত হওয়ার খবর জানায়৷

এর আগে মে মাসে, ওডিশায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে পাঁচ মাওবাদী খতম হয়৷ তাদের মধ্যে মহিলাও ছিল৷ ওডিশার কোরাপুট জেলায় মাওবাদীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষ বাধে৷ জায়গাটি অন্ধ্রপ্রদেশের সীমানার কাছে৷ জানা যায়, পাদুয়া জঙ্গলে দুই তরফে প্রবল গুলির লড়াই শুরু হয়৷ পাঁচ মাওবাদীকে নিকেশ করা সম্ভব হয়৷ মৃতদের মধ্যে তিনজন মহিলাও ছিল৷ তাদের পরিচয় জানা যায়নি৷

শুরুটা হয় ছত্তিশগড়ে৷ মাও অধ্যুষিত দান্তেওয়াড়াতে ডিআরজি ও এসটিএফের সঙ্গে লড়াই শুরু হয় মাওবাদীদের৷ নিরাপত্তা বাহিনীর প্রবল আক্রমণের মুখে পিছু হটতে থাকে মাওবাদীরা৷ অবশেষে খতম হয় দুই জন৷ পুলিশ জানিয়েছে, দান্তেওয়াড়া ও সুকমা সীমানার কাছে গোনদেরাসের জঙ্গল৷ সেখানে লুকিয়ে ছিল মাওবাদীরা৷ খবর পেয়ে অভিযানে যায় নিরাপত্তা বাহিনী৷

এনকাউন্টারের সময় শীর্ষ মাওবাদী কমান্ডাররা সেখানেই ছিল৷ সূত্র জানায়, ওই জঙ্গলে ঘাঁটি বানায় মাওবাদীরা৷ একটি তাঁবুতে শ্যাম, দেব ও বিনোদ নামে শীর্ষ মাওবাদী কমান্ডাররা ছিল৷ তারা পালিয়ে যায়৷ তবে অনেক মাওবাদী গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে খবর৷ এনকাউন্টারস্থল থেকে আইএনএসএএস রাইফেল এবং অন্যান্য অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে৷