ছবি- প্রতীকি

লখনউ: বিয়ে করা স্ত্রী’কে তার প্রেমিকের হাতে তুলে দিচ্ছে খোদ স্বামী। সাড়ম্বরে, সাজিয়ে-গুছিয়ে বিদায় করছেন স্ত্রী’কে। না সলমন, ঐশ্বর্যার সিনেমার স্ক্রিপ্ট নয়। সত্যি এমন ঘটনার নজির গড়লেন এক ব্যক্তি।

এ যেন ‘হাম দিল দে চুকে সনম’এর স্ক্রিপ্ট। বাস্তবে যখন চারপাশ থেকে গৃহবধূকে খুন আর অকথ্য অত্যাচারের খবর আসছে, তখন এমনই ফিল্মি কায়দায় স্ত্রী’র ভালোবাসাকে সম্মান দিয়ে নজির গড়লেন এক স্বামী। হাসিমুখে ফিরিয়ে দিলেন তাঁর প্রেমিকের কাছে।

ফইজাবাদের চন্দার সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিল সূরযের। তাঁরা একই গ্রামে থাকতেন। কিন্তু, বাড়ির চাপে পড়ে বিয়ে করতে হয় ফুলচাঁদকে ২০১৯ সালে তাঁদের বিয়ে হয়। বিয়ের পরই কর্মসূত্রে জলন্ধরে চলে যায় ফুলচাঁদ। মাঝে-মধ্যেই ফোনে কথা হয় দু’জনের। তবে সূরযের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় থাকে। কিছুদিন আগে ফিরে আসে ফুলচাঁদ। স্বামীকে সাড়ি, গয়না সব ফেরৎ দিয়ে দেয় চন্দা। সেইসঙ্গে সব সত্যি কথাও বলে দেয় সে।

ফুলচাঁদ জানিয়েছে, ”কিছুক্ষণের জন্য তিনি খুব রাগ হয়। খুব কষ্টও পাই। কিন্তু, তারপরই সমাধান খোঁজার চেষ্টা করি।” চন্দা যেহেতু সব সত্যি কথা বলে দিয়েছে তাই তিনি খুশি হন। বাবার সঙ্গে আলোচনা করে পঞ্চায়েতে গিয়ে ফুলচাঁদ জানান যে তিনি চন্দার সঙ্গে সূরযের বিয়ের অনুমতি চান। দীর্ঘ আলোচনার পর বুয়ের অনুমতি দেয় পঞ্চায়েত। এরপর বৃহস্পতিবার শিবমন্দিরে দু’জেনর বিয়ের আয়োজন করা হয়।  

ফুলচাঁদের এই সাহসী সিদ্ধান্তকে স্যালুট জানিয়েছে এলাকার মানুষ। জোর করে একটা সম্পর্কে থাকার থেকে সত্যিটাকে স্বীকার করে নেওয়ায় প্রশংসা করেছেন সবাই। চন্দার বিয়েতে খাওয়া দাওয়ার আয়োজন করে ফুলচাঁদের পরিবার। বিদায়ের সময় নতুন দম্পতির হাতে তুলে দেয় উপহারও।