লখনউ: ফের সংবাদের শিরোনামে যোগী রাজ্য। এবার বিজেপি বিধায়ক রবীন্দ্র নাথ ত্রিপাঠী ও তাঁর পরিবারের ৬ সদস্যের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের মামলা রজু করল পুলিশ ।

৪০ বছরের এক মহিলা এই অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগকারিণী প্রথমে রবীন্দ্রনাথ ত্রিপাঠীর ভাইপো সন্দীপ তিওয়ারির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। পুলিশের কাছে তিনি বয়ান দেন, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁর সঙ্গে সহবাস করেছিল বিজেপি বিধায়কের ভাইপো। পরে তিনি নিজের অভিযোগে বিজেপি বিধায়ক রবীন্দ্র নাথ ত্রিপাঠীর নাম করেন।

মহিলার বিস্ফোরক দাবি, সহবাসের পর ২০১৭ সালেও বিয়ের বিষয়ে কোনও কথা না এগোনোয় মুখ খুলতে শুরু করেন তিনি। আর এরপরেই তাঁকে ভাদোহির একটি হোটেলে বন্দি করে রাখা হয় বলে অভিযোগ।

মহিলার জানান, ওই হোটেলে একমাস ধরে প্রতিদিন তাঁকে ধর্ষণ করত বিজেপি বিধায়ক, তাঁর ভাইপো ও পরিবারের অন্য বেশ কয়েকজন সদস্য। সব মিলিয়ে মোট ৬ জন তাঁকে ধর্ষণ করত বলে নিজের অভিযোগে জানিয়েছেন ওই মহিলা। তিনি পুলিশের কাছে জানিয়েছেন, ২০১৭ সালে ভোট চলার সময় হোটেলে এসে তাঁকে প্রথমবার ধর্ষণ করেছিল রবীন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী। এরপর তাঁকে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন লোক ধর্ষণ করেছে বলেও দাবি করেন তিনি। মহিলা অভিযোগ করেছেন, ধর্ষণের ফলে একবার তিনি প্রেগন্যান্ট হয়ে পড়লে তাঁকে জোর করে গর্ভপাতও করানো হয়।

অন্যদিকে, রবীন্দ্র নাথ ত্রিপাঠী নিজে এই অভিযোগের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। তিনি দাবি করেছেন, তাঁকে বদনামের জন্য এটা একটা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। তিনি বলেন, “যদি তদন্তের পর কোনও অভিযোগ সত্যি বলে প্রমাণিত হয়, তাহলে আমি ও আমার পরিবার ফাঁসির জন্য প্রস্তুত”। পুলিশ জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত চলছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ