লখনউ: লাগাতার প্রবল বর্ষণে বিপর্যস্ত অবস্থা উত্তরপ্রদেশে। গত দু দিনের প্রবল বর্ষণে এখনও পর্যন্ত এই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৯। এদিকে রবিবারও অবস্থার উন্নতি হবে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। জানা গিয়েছে, রবিবারও এই রাজ্যে আরও ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা প্রকাশ করেছে আবহাওয়া দফতর। যার জেরে পরিস্থিতি আরও অবনতির আশঙ্কায় প্রতিটি জেলাশাসককে সব সময় প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দিয়েছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার।

গভীর নিম্মচাপের কারনে ফের উত্তরপ্রদেশে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এদিকে প্রবল বৃষ্টিতে শুক্রবার পর্যন্ত রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মারা গিয়েছে ৪৪ জন সাধারণ মানুষ। এদিকে শনিবার সরকারি ভাবে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অতিভারী বৃষ্টির কারনে ৩৫ জনের মৃত্যুর কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। তারপর গত দুদিনে উত্তরপ্রদেশে বৃষ্টি সংক্রান্ত ঘটনায় আরও ৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

প্রবল বৃষ্টির কারনে শনিবার উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ে চার জন মানুষ মারা গিয়েছে। এদিকে মির্জাপুর জেলায় তিন জন মারা গিয়েছে এবং আম্বেদকরনগর এবং গাজিপুরে তিন জন মারা গিয়েছে। এদিকে বৃষ্টির কারনে পৃথক পৃথক ঘটনায় গোরক্ষপুর, ফিরোজাবাদ, উন্নাও, বান্দা,বালিয়া সহ ফতেপুর, সাহারানপুর,অমেথি, প্রয়াগরাজ, চিত্রকুতপুর, সুলতানপুর এবং দেওরিয়াতে মৃত্যু হয়েছে অনেকের।

তারপরে আবার রবিবার ফের ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস দেওয়ায় সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করেছে যোগী সরকার। শুক্রবারই যোগী সরকার বিভিন্ন জেলার ম্যাজিস্ট্রেটদের বন্যা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা গুলি ঘুরে ঘুরে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি বন্যার ফলে ক্ষতিগ্রস্তদের চার লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়াও বন্যা দুর্গতদের জরুরী ত্রান সহ সবরকমের সহায়তার জন্য প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনকে। গোটা পরিস্থিতির উপর তিনি নজর রাখছেন বলে জানা গিয়েছে।