কলকাতাঃ  সপ্তাহের প্রথম দিনেও CAA বিরোধী প্রবল বিক্ষোভ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। সোমবার সকাল থেকে বিভিন্ন জেলায় জেলায় শুরু বিক্ষোভ, অবরোধ। বাতিল একাধিক লোকাল ও দূরপাল্লার ট্রেন। কাজের দিনে চূড়ান্ত ভোগান্তির শিকার মানুষ। সকাল পৌনে ১২টা নাগাদ কোচবিহারের হরিণচওড়া এলাকায় নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু করেন আন্দোলনকারীরা। রাস্তা আটকে টায়ার জ্বালিয়ে চলে অবরোধ। সোমবার সকাল থেকে দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় রাজ্যের সর্বত্র। তবে বড়সড় ঘটনা ঘটে উত্তর দিনাজপুর জেলায়।

সোমবার সন্ধ্যায় দফায় দফায় কাঁকিতে জাতীয় মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা। বেশ কয়েকটি ট্রাক এবং বাসে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। যার জেরে এলাকায় প্রবল উত্তেজনা তৈরি হয়। যদিও ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় পুলিশ আধিকারিকদেরও। যদিও ঘটনার কিছু পরে আয়ত্তে আসে সম্পূর্ণ পরিস্থিতি।

কেন্দ্রের বিতর্কিত নয়া নাগরিকত্ব আইন ঘিরে গত শুক্রবার থেকে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে হিংসাত্মক বিক্ষোভ-হাঙ্গামার ঘটনা ঘটছে। প্রথম দিনে হাওড়ার উলুবেড়িয়া, মুর্শিদাবাদের বেলডাঙায় ব্যাপক অশান্তি হয়। শনিবার সকাল থেকে একের পর এক ঘটনা সামনে আসতে থাকে। কোথায় ট্রেনে জ্বালিয়ে দেওয়ার মতো ঘটনা, কোথাও আবার স্টেশন ভাঙচুরের মতো একের পর এক ঘটনা সামনে এসেছে। শুক্র, শনি ও রবিবারের পর সপ্তাহের প্রথম দিনেও বিরাম নেই অশান্তিতে। কোথাও গাড়ি আটকে কোথাও আবার রেললাইনে বসেই চলছে প্রতিবাদ। দফায় দফায় বিক্ষোভ প্রতিবাদে চরম বিপাকে সাধারণ মানুষ। দুর্ভোগের শিকার পড়ুয়ারাও।

উল্লেখ্য, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সোমবার সকাল থেকেই ফের শুরু রেল রোকো। ওভারহেডের তারে কলাপাতা ফেলায় বন্ধ হয়ে যায় শিয়ালদহ-লক্ষ্মীকান্তপুর শাখার ট্রেন চলাচল। আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভের জেরে বজবজ শাখার ট্রেন চলাচলও ব্যাহত হয়। একাধিক লোকাল ট্রেন দেরিতে চলায় বিপাকে পড়েন নিত্যযাত্রীরা রেল লাইনে বসে অবরোধ চলে হাওড়ার দাদপুর ও আমতায়। পূর্ব মেদিনীপুরের সুতাহাটাতেও রেল লাইনে অবরোধ বিক্ষোভকারীদের। দফায় দফায় অবরোধে ব্যাহত হয় রেল পরিষেবা। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার একাধিক স্টেশনে দাঁড়িয়ে যায় ট্রেন। হাওড়া থেকেও লোকাল ট্রেনের পাশাপাশি বাতিল কয়েকটি দূরপাল্লার ট্রেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।