স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : ফের বন্ধ হল লোকাল ট্রেন। ফলে আরও একবার শুরু যাত্রী ভোগান্তি। লকডাউন করলেও মুশকিল, না করলেও মুশকিল। এমত অবস্থায় বন্ধ হয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। অনেকে মানছেন এটার দরকার ছিল, আবার পর মুহূর্তেই বলছেন নিজেদের সমস্যার কথা। এমন অবস্থায় যাত্রায় বাড়ছে সাইকেলের ব্যবহার।

এখনও অফিস খোলা। সরকারি অফিসে ৫০ শতাংশ লোক নিয়ে চলছে কাজ। এমন সময়ে ট্রেন বন্ধ। ফলে ফিরছে সেই সাইকেল করে অফিস যাওয়ার ছবি। অনেকে ভিড় এড়াতে ভোরবেলা বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ছেন কাজের জন্য। জানেন অনেক ঘুরপথে যেতে হবে। সময় লাগবে, তাই এই পন্থা বেছে নিচ্ছেন অনেকেই। আবার খরচ বাড়ছে অনেকটা। সেটাও সমস্যা হয়ে যাচ্ছে বহু মানুষের কাছে। বেশি সমস্যায় পড়েছেন ট্রেনের হকার ও যারা গ্রাম থেকে সবজি নিয়ে ভেন্ডর কামরায় উঠে কলকাতার পাইকারি বাজারে এসে সবজি বিক্রি করেন। অনেকের দাবি কিছু স্পেশ্যাল ট্রেন চালু রাখা হয়। না হলে রোজগারে সমস্যা হবে। অনেকে আবার ভাবছেন সবজি নিজের গ্রামের বাজারে বেচবেন কিংবা বাড়ি বাড়ি সাইকেল চালিয়ে বিক্রি করবেন।

ঘটনা হল, সবজি বাজারে কম এলে তখন সস্তার বাজার চড়া হয়ে যেতে পারে। ফলে ট্রেন বন্ধ হওয়ার যাত্রী ভোগান্তি যে বহুমুখী তা স্পষ্ট। কিন্তু রাজ্য ভাবছে চেন ব্রেক করতে তাই নেওয়া হয়েছে একাধিক সিদ্ধান্ত।

লোকাল ট্রেনের পাশাপাশি পুরোপুরি বন্ধ হচ্ছে সুইমিং পুল, জিম, শপিং কমপ্লেক্স, সিনেমা হল, রেস্তোরাঁ, অডিটোরিয়াম, , বিউটি পার্লার, স্পোর্টস কমপ্লেক্স, স্পা সেন্টার ও হিলিং সেন্টার, শপিং মল। সামাজিক, সাংস্কৃতিক, শিক্ষামূলক, বিনোদনমূলক জমায়েতে ৫০ শতাংশের বেশি লোক নয়। বউবাজারে সোনার দোকান খোলা থাকবে বেলা ১২টা থেকে বিকেল ৩টে পর্যন্ত।  বাজার, রিটেল আউলেট, স্ট্যান্ড অ্যালোন শপ সকালে ৭টা থেকে ১০টা এবং বিকেল ৫টা থেকে ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় জমায়েত, সমাবেশে ৫০ শতাংশ ভিড়। সরকারি ও বেসরকারি বাস রাস্তায় নামবে ৫০ শতাংশ, মেট্রো রেলও একইভাবে ৫০ শতাংশ চলবে। ৭ মে মধ্যরাত থেকে বিমানে করে বাইরের রাজ্য থেকে এলে লাগবে আরপিটিসিআর রিপোর্ট। রিপোর্ট নেগেটিভ হতে হবে। বিমানে রাজ্যে অবতরণের ৭২ ঘণ্টা আগে এই করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। ভুয়ো নেগিটিভ রিপোর্ট জমা করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর জন্য চেকিং হবে। বাইরে থেকে আসা বিমানযাত্রীদের শরীরে কোভিড ১৯ মিললে ১৪ দিনের কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে, যা সরকার ব্যবস্থা করবে। পাশপাশি দূরবর্তী ট্রেন এবং আন্তঃরাজ্য বাসে করে যারা রাজ্যে আসবেন তাঁদেরও আরপিটিসিআর-টেস্ট নেগেটিভ হতে হবে। ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে ১০টা থেকে বিকেল ২টা পর্যন্ত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.