মুম্বই: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৩৯ বারের চেষ্টায় চাঁদে মহাকাশ যান পাঠাতে সক্ষম হয়েছিলেন, তাও ভারতীয় সময়ের সাহায্য নিয়ে৷ এমনই মত প্রাক্তন আরএসএস নেতা সাম্বাজি ভিডের৷ তাঁর মতে আমেরিকা চাঁদে মহাকাশযান পাঠাতে সক্ষম হয়েছেন, কারণ একাদশীর দিন তাঁরা সেই যাত্রা করেছিলেন৷

ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরোর চন্দ্রায়ন ২ মাত্র কিছুক্ষণের জন্য সফলতার দরজা থেকে ফিরে এসেছে৷ যদিও প্রকল্পের ৯৫ শতাংশই সফল বলে প্রমাণিত৷ তবে আমেরিকার সফলতার কথা তুলে এই প্রাক্তন আরএসএস সদস্যের দাবি যদি পঞ্জিকা মেনে একাদশীর দিন যাত্রা করত চন্দ্রায়ন ২, তবে সফলতা আসত৷ মহারাষ্ট্রের শোলাপুরে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনই মন্তব্য করেন ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারির ভীমা কোরেগাঁও অশান্তির অন্যতম এই অভিযুক্ত নেতা৷ যদিও কোনওদিনও গ্রেফতার হননি তিনি৷

তাঁর মতে মার্কিন মহাকাশ গবেষকরা বুঝেছিলেন ভারতীয় সময় মেনে চাঁদে মহাকাশযান পাঠালে, তাতেই সফল হবেন তাঁরা৷ তাই একাদশীর দিনকে বেছে নেন তাঁরা৷ ৩৯ বারের চেষ্টায় সফলতা এসেছিল ওই একটাই কারণে, যে তাঁরা একাদশীতে চাঁদে মহাকাশযান পাঠিয়ে ছিলেন৷

হিন্দু ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী, কোনও মাসের দুই পক্ষের ১১তম দিন হল একাদশী৷ হিন্দু ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী এই একাদশী বিশেষ শুভ দিন ও অনেকেই এই দিনে উপোষ করে থাকেন৷

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০২৪ সালে চাঁদে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনা করেছেন। মূলত এই লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে নিয়ে এগোচ্ছে আমেরিকার একাধিক সরকারি-বেসরকারি সংস্থা। সম্প্রতি নাসার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ২০২০ ও ২০২১ সালে চন্দ্রপৃষ্ঠে যন্ত্রপাতি পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে তারা। ২০২৪ সালে মানুষ পাঠাতে যান পাঠাতেই এই উদ্যোগ। যন্ত্রপাতি নির্মাণ ও পাঠাতে অ্যাস্ট্রোবোটিক, ইনটিউটিভ মেশিনস ও অরবিট বেয়ন্ড নামে তিনটি বেসরকারি সংস্থাকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

চাঁদের মাটিতে প্রথম মানুষ পাঠিয়ে গোটা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ১৯৬৯ সালের জুলাইয়ের সেই ঐতিহাসিক অভিযানের পর ১৯৭২ সালে সর্বশেষ চন্দ্রপৃষ্ঠে যন্ত্র পাঠিয়েছিল নাসা। যদিও এরপর কেটে গিয়েছে কয়েক বছর।