তেহরানঃ  তোলপাড় হয়ে গিয়েছে বিশ্ব অর্থনীতি৷ কারণ ইরানের সেই চিরাচরিত হুমকি-একবার আঘাত করলেই আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম ১০০ টালার ছাড়িয়ে যাবে৷ সেই ধাক্কা সহ্য করার ক্ষমতা বেশিদিনের নেই আমেরিকা ও তাদের মিত্র দেশের৷ নাম না করে এভাবেই সৌদি আরব ও অন্যান্য মার্কিন বন্ধু রাষ্ট্রগুলির প্রতি বার্তা দিলেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতার উপদেষ্টা মেজর জেনারেল সৈয়দ ইয়াহিয়া রহিম সাফাভি৷

ইরানি সেনাকর্তা আরও বলেছেন পারস্য উপসাগরে ২৫টি মার্কিন সামরিক ঘাঁটি রয়েছে৷ এই সব ঘাঁটিতে ২০ হাজারের বেশি সেনা আছে। কিন্তু প্রতিটি মার্কিন ঘাঁটি ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রের আওতার মধ্যে।

হুমকির পর হুমকি৷ সেই জেরে পারস্য উপসাগরের হাওয়া গরম হচ্ছে আবার৷ সৌদি আরবের জাহাজে গুপ্ত হামলা হয়েছিল৷ এর পর থেকে আমেরিকা ও আরব দেশগুলির সন্দেহ এই হামলার পিছনে ইরান জড়িত৷ কিন্তু তেহরান সেই দাবি উড়িয়ে দেয়৷ সেই ঘটনার পর থেকে পারস্য উপসাগরে রণতরী পাঠিয়েছে আমেরিকা৷ ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে আরও বেড়েছে কূটনৈতিক তরজা৷

এমনই পরিস্থিতিতে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লা আলি খামেনেইয়ের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল সৈয়দ ইয়াহিয়া রহিম সাফাভি সরাসরি আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷ ইরানি সংবাদ মাধ্যম ফার্স সেই সাক্ষাতকার প্রকাশ করেছে৷ তিনি বলেছেন-আমেরিকা গর্জন ছাড়া কিছুই করছে না। ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে আমেরিকা যদি পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে প্রথম গুলি ছোঁড়ে, সেই মুহূর্তেই তেলের দাম ১০০ ডলার ছড়িয়ে যাবে৷ এর ধাক্কায় ভেঙে পড়বে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ার অর্থনীতি৷