মস্কো: হংকংয় ঘিরে চিনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমেরিকার হস্তক্ষেপের বিষয় সতর্ক করল রাশিয়া। রাশিয়ার বিদেশমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, চিন সরকার হংকংয়ের জন্য জাতীয় নিরাপত্তা আইন নামের যে বিল তৈরি করেছে তার প্রেক্ষিতে আমেরিকার হুমকি দেওয়া উচিত হচ্ছে না। এতে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ওয়াশিংটনের গ্রহণযোগ্যতা নষ্ট হবে।

গত বৃহস্পতিবার চিন হংকংয়ে রাষ্ট্রদ্রোহ, বিচ্ছিন্নতা ও দেশদ্রোহ নিষিদ্ধ করতে জাতীয় নিরাপত্তা আইন চালুর প্রস্তাব দিয়েছে এবং সেই আইনটি আইনটি পাস করানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। আইনটির পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে চিনের বক্তব্য, সন্ত্রাসের হুমকি মোকাবিলা করতে এ আইন একান্ত প্রয়োজন।

এদিকে, মার্কিন বিদেশ মন্ত্রী মাইক পম্পেও সম্প্রতি মার্কিন কংগ্রেসে‌ এই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন পাঠিয়ে চিনকে হুমকি দিয়েছেন। তিনি শুক্রবার বেইজিংয়ের নিন্দা করে জানিয়েছেন, চিন হংকংয়ের ব্যাপারে যে ভাবে ‘একতরফা’ ও ‘বৈরি’ আইন তৈরি করতে চলেছে ওয়াশিংটন তার তীব্র নিন্দা করছে ।

তারই প্রেক্ষিতে রাশিয়ার বিদেশ ‌মন্ত্রী ল্যাভরভের বক্তব্য, আমেরিকা হংকং নিয়ে যে বাগাড়ম্বর করছে তা সম্পূর্ণ চিনের অভ্যন্তরীণ বিষয় নাক গলানো। তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে হস্তক্ষেপের যে চেষ্টা ওয়াশিংটন করছে তাতে অন্যান্য দেশের কাছে আমেরিকার গ্রহণযোগ্যতা নষ্ট হবে। পাশাপাশি তার বক্তব্য, মার্কিন বিদেশ মন্ত্রীর বাগাড়ম্বর নজিরবিহীন হলেও সেটা অবশ্য রাশিয়ার কাছে অপ্রত্যাশিত ছিল না।

প্রসঙ্গত,১৯৯৭ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে হংকং শহরের নিয়ন্ত্রণ পায় চিন। হংকং চিনের একটি আধা স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চল হলেও এটি স্বাধীন হয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে এবং এ কাজে আমেরিকার যথেষ্ট উস্কানিও রয়েছে। হংকংয়ে কয়েক মাসের শান্ত অবস্থার পর চিনের এ আইন চালুর পরিকল্পনাকে ঘিরে পরিস্থিতি আবার উত্তপ্ত হচ্ছে। রবিবার হংকংয়ে বড় ধরনের বিক্ষোভ সামলাতে পুলিশকে টিয়ার গ্যাস ছুঁড়তে হয় এবং শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।