নয়াদিল্লি: পরিস্থিতি উত্তপ্ত৷ তাই কাশ্মীরে প্রাণ সংশয় হতে পারে পর্যটকদের৷ এমনই আশংকা প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ এই মর্মে নিজেদের দেশের নাগরিকদের জন্য একটি সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ তবে শুধু কাশ্মীর নয়, পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু এলাকার জন্যও সতর্কতা জারি হয়েছে৷ যার মধ্যে রয়েছে রাজ্যের পশ্চিম ভাগের জঙ্গলমহল এলাকা৷

পাশাপাশি, উত্তর তেলেঙ্গানা ও মহারাষ্ট্রের পূর্ব দিকের এলাকাগুলিতে ভ্রমণে বিরত থাকতে বলা হয়েছে মার্কিন পর্যটকদের৷ মূলত মাওবাদী সমস্যার বাড়বাড়ন্তের কারণের এই ধরণের নির্দেশিকা বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন : বহাল তবিয়তে লন্ডনে হীরের ব্যবসা শুরু পলাতক মোদীর

এদিকে, ভারত পাকিস্তান দুদেশের মধ্যে সাম্প্রতিক তৈরি হওয়া উত্তপ্ত পরিস্থিতির জেরে নিজের দেশের পর্যটকদের জন্য উদ্বিগ্ন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ কোনও পর্যটক কাশ্মীরে এসে যাতে বিপদে না পড়েন, তার জন্য আগেই একটি ট্র্যাভেল অ্যাডভাইসারি বা ভ্রমণ বিষয়ক সতর্কতা জারি করা হয়েছে সেদেশের প্রশাসনের পক্ষ থেকে৷

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে কোনও মার্কিন নাগরিক যেন কাশ্মীর ভ্রমণে না যান৷ তবে এই নির্দেশিকায় লাদাখ এলাকা ও লেহ অঞ্চলে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়নি৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন ইতিমধ্যেই এই সতর্কবাণী প্রচার করতে শুরু করেছে৷ মূলত দুই দেশের মধ্যে চলা জটিল অবস্থার কথা মাথায় রেখেই এই সতর্কতা বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন : সীমান্তে সংঘর্ষবিরতি পাক সেনার, গুরুতর জখম পুলিশ অফিসার

নির্দেশিকা অনুযায়ী কোনও মার্কিন পর্যটককে ভারত পাকিস্তান সীমান্ত থেকে ১০ কিলোমিটারের আশেপাশে থাকতে বারণ করা হয়েছে৷ যে কোনও মুহুর্তে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করা হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে৷ পুলওয়ামা হামলার পর এই ধরণের নির্দেশিকা জারি করা হতে পারে বলে ধারণা করা হয়েছিল৷

অ্যাডভাইসারিতে বলা হয়েছে কাশ্মীর এখন উত্তপ্ত৷ যে কোনও মুহুর্তে সন্ত্রাসবাদী হামলা বা দুদেশের মধ্যে গুলি বিনিময় শুরু হতে পারে৷ ফলে সেখানে বিদেশি পর্যটকদের প্রাণ সংশয় হতে পারে৷ জঙ্গিরা ভ্রমণস্থলগুলিকে নিশানা করতে পারে, এছাড়াও তাদের নিশানায় থাকতে পারে শপিং মল, যানবাহন, গুরুত্বপূর্ণ বাজার, সরকারি অফিসের মত জায়গাগুলি৷