ওয়াশিংটন: মহাকাশে অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইল পাঠিয়ে বড়সড় সাফল্যের মুখ দেখেছে ভারত। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেই ঘোষণা করে খবর দিয়েছেন দেশবাসীকে। কিন্তু ওই অভিযানের সময় ভারতের উপর নজর রাখছিল আমেরিকা। এমন জল্পনা তৈরি হয়েছে।

শোনা যাচ্ছে, ভারত মহাসাগরে মার্কিন এয়ারবেস দিয়েগো গার্সিয়া থেকে একটি এয়ারক্রাফট উড়িয়ে পুরো বিষয়টার উপর নজরদারি করা হচ্ছিল। যদিও সেই দাবি খারিজ করে দিয়েছে ওয়াশিংটন। পেন্টাগনের দাবি, ভারতের ওইদিনের অভিযানের কথা আমেরিকা জানত। তবে তারা কোনও নজরদারি চালায়নি।

আমেরিকার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র লেফট্যানেন্ট কর্নেল ডেভিড ডব্লু ইস্টবার্ন জানিয়েছেন, আমেরিকা ভারতের সঙ্গে আর্থিক ও অন্যান্য ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে সবরকম উদ্যোগ নিচ্ছে।

মিলিটারি মুভমেন্টের উপর নজরদারি চালানো Aircraft Spots বলছে, ভারতের মিসাইল টেস্টে নজরদারি চালানো ওইদিন বঙ্গোপসাগরের দিকে গিয়ছিল একটি মার্কিন এয়ারক্রাফট। বিশেজ্ঞদের মতে, ভারতের ওই অভিযানে নজর ছিল আমেরিকার।

গত বুধবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই সাফল্যের কথা ঘোষণা করেন। তিনি জানান, বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে এই সাফল্য পেল ভারত। এর আগে কেবল আমেরিকা, চিন ও রাশিয়ার কাছেই এই ক্ষমতা ছিল।

গত ৬ মাস ধরে চলছিল ‘মিশন মোড’। অর্থাৎ তৎপরতার সঙ্গে কাজ চলছিল। নির্ধারিত দিনে মিসাইলটি পরীক্ষা করতে ১০০ জন বিজ্ঞানী দিন-রাত কাজ করছিলেন বলে জানিয়েছেন সতীশ রেড্ডি। বুধবার ঠিক সকলা ১১টা ১৬ মিনিটে ওড়িশার বালাসোর থেকে উৎক্ষেপণ করা হয় ওই মিসাইল। মাটি থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে একটি অকেজো হয়ে যাওয়া স্যাটেলাইটে আঘাত করে সেই মিসাইল।

মহাকাশে যাতে আশেপাশের অন্যান্য জিনিসে আঘাত না লাগে, তাই দায়িত্বশীল দেশ হিসেবেই ৩০০ কিলোমিটার দূরত্বের ওই স্যাটেলাইটকে ধ্বংস করা হয়।