ওয়াশিংটন: নিরাপত্তার কথা ভেবে ভারতে কেন্দ্রীয় সরকার নিষিদ্ধ করেছিল টিকটক। তার পাশাপাশি নিষিদ্ধ করা হয়েছে একাধিক চিনা অ্যাপকে। ভারতের এই পদক্ষেপের পরেই কার্যত একাধিক দেশের তরফে দাবি করা হয়েছিল জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটকের বিরুদ্ধে। যাতে যোগ দিল আমেরিকা। এবারে জানা গিয়েছে আমেরিকায় ব্যান করা হল উইচ্যাট এবং টিকটককে।

এই বিষয় নিয়ে জানানো হয়েছে মার্কিন প্রশাসনের তরফে। করোনা পরবর্তী সময়ে গোটা বিশ্ব এই মুহূর্তে ব্যস্ত প্রতিষেধক তৈরি করার কাজে। তারই সঙ্গে আমেরিকার এবং চিনের মধ্যে চলছে ঠাণ্ডা লড়াই। বিশেষত করোনা পরবর্তী সময়ে চিনের উপরে রীতিমত রেগে ওঠে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

যাতে সমর্থন জানিয়েছিল অন্যান্য একাধিক দেশ। অন্যদিকে গালওয়ান সীমান্তে ভারত চীন সংঘর্ষের পরে সরাসরি ভারতের তরফে আনা হয়েছিল চিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল স্ট্রাইক। যার সমর্থন জানিয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ একাধিক দেশ। তবে মার্কিন প্রশাসনের তরফে জানা গিয়েছে নিরাপত্তার কথা ভেবেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তাদের তরফে।

ভারতের তরফে ব্যান করার পরে এই টিকটকের উপরে কড়া নজর রাখতে শুরু করে মার্কিন প্রসাসন। পাশপাশি সমান ভাবে নজরদারির আওতায় আসে উইচ্যাট। তবে এবারে জানা গিয়েছে শুধু ব্যান নয় নিষেধাজ্ঞা থাকবে এই অ্যাপ ডাউনলোডের ক্ষেত্রেও। তবে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার আগে টিকটক প্রধান বাইটডান্সের তরফে বেশ কিছু পদক্ষেপের কথা জানা গিয়েছিল।

অর্থাৎ চিন বিরোধী লড়াইতে এবারে পদক্ষেপ নিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তবে জানা গিয়েছে মার্কিন কিছু সংস্থার সঙ্গে কথাবার্তা চলছে বাইটডান্সের। সেক্ষেত্রে হয়তো কিছুটা হলেও ছাড় পেতে পারে টিকটক। কিন্তু যতদিন না চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয় ততদিন এই অ্যাপ ডাউনলোড বা আপডেট করা যাবে আমেরিকায়।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।