ওয়াশিংটন: পাকিস্তানকে হাফিজ সইদ কিংবা মাসুদ আজহারের মত জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলল আমেরিকা। ওয়াশিংটন এই বার্তা দিয়েছে, ভারত-পাক অশান্তি কমাতে দ্রুত জঙ্গি অনুপ্রবেশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

দক্ষিণ এশিয়া সংক্রান্ত বিষয়ের মার্কিন সচিব অ্যালিস ওয়েলস রাষ্ট্রসংঘে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন যে তিনি কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতা চান না।’

ট্রাম্প সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে বৈঠক করেন।

উল্লেখ্য, হাফিজ সইদের জন্য প্রকাশ্যেই সাহায্য চেয়েছে পাকিস্তান। রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলে তা নিয়েই সুপারিশ করা হয়েছে পাকিস্তানের তরফে। ব্যক্তিগত খরচের টাকার জন্য তাঁকে ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহার করতে দেওয়া হোক। নিরাপত্তা কাউন্সিল পরিবারের ‘প্রাথমিক প্রয়োজনের’ খরচের অনুমোদন দিয়েছে বলেই খবর পাওয়া গিয়েছে।

আমেরিকার ট্রেজারি দফতর, ২৬/১১ মুম্বই হামলার মূল চক্রিকে বিশেষ জঙ্গি তকমা দিয়েছে। ২০১২ সালেই আমেরিকা হাফিজ সইদের বিষয়ে তথ্য দেওয়ার পরিবর্তে ১০ মিলিয়ন ডলার পুরস্কারও ঘোষণা করেছিল।

হাফিজের হয়ে পাকিস্তান এই আবেদন জানিয়েছে রাষ্ট্রসংঘকে। যার উত্তরে রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা কাউন্সিলের তরফে একটি ‘নো অবজেকশন লেটার’ দিয়ে জানিয়েছে, “রাষ্ট্রসংঘের কমিটি হাফিজ সইদের প্রাথমিক খরচের জন্য পাকিস্তানের আবেদন মঞ্জুর করেছে।”

রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা কাউন্সিলের নির্দেশ মেনেই পাকিস্তান সরকার হাফিজ সইদের ব্যাংক একাউন্টের সচলতা বন্ধ করে দিয়েছিল। পাকিস্তানের আবেদন জানিয়েছিল হাফিজ সইদকে মোটামুটি ১০০০ ডলার ব্যাংক থেকে তুলতে দেওয়া হোক তাঁর পরিবারের প্রাথমিক খরচের জন্য। যার অনুমোদন দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা কাউন্সিল।